নামে কীই বা যায় আসে!

0
736
সম্পাদকীয়ঃ—রাজ্য জুড়ে আর একটা বিতর্ক শুরু হয়েছে,তা হল রাজ্যের নাম বদল নিয়ে রাজ্য- কেন্দ্রের দ্বন্দ্ব।এ রাজ্যের সরকার চাইছে রাজ্যের নাম বদল করে রাখা হোক বাংলা।

কেন্দ্রের বিজেপি সরকর সম্প্রতি জানিয়ে দিয়েছে যে এ রাজ্যের নাম এখনই বদল করা সম্ভব নয়।কারণ হিসেবে কেন্দ্র সরকার রাজ্য সরকারকে জানিয়েছে যে এভাবে নাম বদলাতে হলে সংবিধানের আইন বদল করতে হয় এবং তা সময় সাপেক্ষ ফলে এখনই নাম বদল সম্ভব নয়।স্বাভাবিক ভাবেই কেন্দ্রীয় সরকারের এই যুক্তিকে এ রাজ্যের শাসক দল রাজনীতির গন্ধ পেয়েছে,রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অভিয়োগ করেছেন যে বিজেপি রাজনীতি করে বাংলাকে বঞ্চনা করতে চাইছে,বাংলার ন্যায্য দাবিকে মান্যতা দিতে অস্বীকার করছে।এ রাজ্যের সিপিএম ও কংগ্রেসও নাম বদলের পক্ষে,তারাও কোন্দ্রীয় সরকারের এই সিদ্ধান্তের মধ্যে রাজনীতির গন্ধ পাচ্ছে।

অন্য দিকে বঙ্গ বিজেপি এই নাম বদলের ঘোর বিরোধিতা করেছে,তাদের মতে পূর্ব বাংলাকে রাজনৈতিক স্বার্থে আলাদা করা হয়েছিল,শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জি নিজের উদ্যোগে পশ্চিমবঙ্গকে রক্ষা করেছিলেন,এই নামের সঙ্গে একটা ইতিহাস জড়িয়ে সেই ইতিহাসকে মুছে দেওয়া যাবে না,তাই তারা পশ্চিমবঙ্গের নাম বদলের বিরোধী।

অন্যদিকে নাম বদলের পক্ষে যারা তাদের যুক্তি পুর্ব যখন আলাদা রাষ্ট্র তখন পশ্চিমবঙ্গ বলে কিছু থেকে লাভ নেই।তাছাড়া বংলা নাম এ রাজ্যের সংস্কৃতির সঙ্গে সামঞ্জস্য পুর্ণ,যে রাজ্যের ভাষা বাংলা সে রাজ্যের নামও বাংলা হলে ভাল হয়।মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আর একটা যুক্তি নাম বদলের পক্ষে তা হল বাংলা নাম হলে আদ্যক্ষর বি হওয়ায় জাতীয় বিষয় বক্তব্য রাখার সময় বাংলা আগে ডাক পাবে,এ এর পরেই বি যেহেতু বাংলা তার কথা বলার সুযোগ আগে পাবে।

বলা বাহুল্য এ বিতর্ক এখন চলবে।যে যাই বলুক রাজনীতির অনুষঙ্গ ধরেই এই বিতর্কের বিস্তার হতে থাকবে।আমাদের প্রশ্ন এই বিতর্ক ও রাজনৈতিক চাপানউতোরে সাধারণ মানুষের কী লাভ?নাম বদল হল বা না হল তাতে কী এ রাজ্যের অর্থনৈতিক অবস্থার কোন উন্নতি হবে,শিল্প হবে,দারিদ্র ঘুচবে,শশ্ক্ষা-স্বাস্থ্য পরিকাঠামো নতুন করে গড়ে উঠবে?উত্তর-না এসব কিছুই হবে না,তাহলে কেন এই বিতর্ক,কেন এই রাজনৈতিক টানাপোড়েন।

আমাদের বক্তব্য নামে কিছু যায় আসে না,দরকার মানুষের কথা ভাবার,মানুষের উন্নতি করার।এ রাজ্যের নাম পশ্চিমবঙ্গ বা বাংলা যাই হোক না কেন,দরকার নাগরিকদের সুরক্ষা,দরকার সুশাসন,দরকার জীবন-যাপন করার মত অর্থের যোগান দেওয়া,দরকার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখা,দরকার স্বাস্থ্য পরিষেবাকে উন্নত করা,যেন কোন সাধারণ মানুষ বিনা চিকিত্সায় মারা না যান তা নিশ্চিত করা।রাজনৈতিক নেতারা মানুষের কথা ভাবুন,অযথা নাম নিয়ে তরজা না করে প্রয়োজনীয় কাজ গুলোতে মন দিন।সুন্দর নাম না,সুন্দর কাজ দরকার,রাজ্য সরকার সুন্দর কাজ করলে মানুষ তাকে মনে রাখবে,নাম বদল হোক বা নাহোক রাজ্য সরকার দরকারি কাজে মন দিন।আমরা বরং রাজ্যের রাজনৈতিক নেতাদের শেক্সপিয়রের সেই কথাটা মনে করিয়ে দিতে চাইবো নামে কিই বা আসে যায়!

Previous articleমুকুল রায়ই কি রাজ্যের পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী? জানতে পড়ুন!
Next articleবোলপুরে বালু শিল্প করে নজর কাড়লেন ওড়িশার ছাত্র-ছাত্রীরা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here