দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের শ্যালিকা মানেকা গম্ভীরকে গতকাল সাড়ে তিন ঘণ্টা জেরা করেছিল সিবিআই। মানেকার জবাবে নাকি সন্তুষ্ট হননি আধিকারিকরা। এদিন অভিষেকের স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জেরা করতে তারা যায় অভিষেকের কালীঘাটের বাড়ি ‘শান্তিনিকেতনে’। সবাই ভেবেছিলেন এই জেরাও হয়তো দীর্ঘ সময় চলবে। কিন্তু মাত্র সওয়া এক ঘণ্টাতেই শেষ হয়ে গেল জেরা। বেরিয়ে গেলেন সিবিআই আধিকারিকরা।

এদিন সকাল ১১টা ৩৭ মিনিট নাগাদ অভিষেকের বাড়িতে যায় আট সদস্যের সিবিআই দল। বেলা ১১টা ৫০ মিনিট নাগাদ বাড়ির একতলায় বসে রুজিরাকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন তাঁরা। এসপি পদমর্যাদার অফিসার বিশ্বজিৎ দাসের নেতৃত্বে শুরু হয় জেরা। জেরার জন্য আট পাতার একটি প্রশ্নপত্রও তৈরি করে নিয়ে গিয়েছিল সিবিআই।

বেলা ১টা ১০ মিনিট নাগাদ দেখা যায় অভিষেকের বাড়ি থেকে বের হচ্ছেন সিবিআই আধিকারিকরা। সংবাদমাধ্যমের প্রশ্নের জবাবে অবশ্য কিছু বলেননি তাঁরা। রুজিরার জবাবে তাঁরা সন্তুষ্ট কিনা সে বিষয়েও মুখে কুলুপ এঁটেছেন সিবিআই আধিকারিকরা। ফলে স্বভাবতই প্রশ্ন উঠছে এত তাড়াতাড়ি কি সব উত্তর পেয়ে গেল সিবিআই? নাকি এটা প্রথম ধাপ। পরে ফের জেরা করবে তারা?


সিবিআই আধিকারিকরা মুখে কিছু না বললেও সূত্রের খবর, এদিন রুজিরাকে শুধুমাত্র ব্যাঙ্ককের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সংক্রান্ত প্রশ্ন করেছেন সিবিআই আধিকারিকরা। সেই অ্যাকাউন্টে নির্দিষ্ট কিছু লেন-দেন সংক্রান্ত তথ্য সিবিআইয়ের কাছে রয়েছে। সেই সমস্ত তথ্য দেখিয়েই তাঁকে প্রশ্ন করেছে কেন্দ্রীয় সংস্থা। এছাড়া তাঁর পাসপোর্ট, মোবাইল নম্বর, বিদেশ যাত্রা সংক্রান্তও কিছু প্রশ্ন নাকি করেছেন আধিকারিকরা।

জানা গিয়েছে, রুজিরাকে জেরার পরে সরাসরি নিজাম প্যালেসে সিবিআই দফতরে গিয়েছেন আধিকারিকরা। সেখানে কয়লা পাচার কাণ্ডের তদন্তে যে আধিকারিক রয়েছেন তাঁকে রিপোর্ট দেবেন তাঁরা। তারপরে রুজিরার জবাব নিয়ে রিভিউ করা হবে। এই প্রক্রিয়ার পরেই পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.