দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ বছর শেষ হতে আর মাত্র হাতে গোনা কয়েকটা দিন বাকি। কিন্তু ডিসেম্বরের শেষেও দেখা নেই জাঁকিয়ে ঠান্ডার।

বড়দিনের আগে থেকেই কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গে উধাও হয়েছে শীতের কনকনানি। বুধবার সকালে ‘উত্তপ্ত কলকাতা’র সর্বনিম্ন তাপমাত্রা পৌঁছে গিয়েছে সাড়ে ১৭ ডিগ্রির কাছাকাছি। কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় আকাশ রয়েছে মেঘলা। জেলার কোথাও কোথাও কুয়াশাও দেখা গিয়েছে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় হালকা বৃষ্টি হতে পারে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলিতে। এমনটাই জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

২০২১ সালে বছরভর বিভিন্ন জেলা অতিবৃষ্টিতে জর্জরিত হয়েছে। বছরের শেষে এসেও সেই বৃষ্টিতে ভিজতে চলছে রাজ্যের একাধিক জেলা। 

আবহবিদদের একাংশ জানাচ্ছেন, উত্তর-পশ্চিম ভারতে হাজির হওয়া পশ্চিমী ঝঞ্ঝার কারণেই উত্তুরে হাওয়া বাধা পেয়েছে। সেই ঝঞ্ঝা ক্রমশ পূর্ব ভারতের দিকে বয়ে আসার ফলে রাতের পারদ পতনেও বাধা সৃষ্টি করছে। এই ঝঞ্ঝার জেরেই বুধবার এবং বৃহস্পতিবার গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় হালকা বৃষ্টি হতে পারে। হাওয়া অফিস জানিয়েছে, কলকাতা, দুই পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলি, পূর্ব বর্ধমান এবং নদিয়ায় হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে আগামী ২৪ ঘণ্টায়। হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হতে পারে পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, পশ্চিম বর্ধমানে।

তবে দক্ষিণবঙ্গে শীতের দাপট কমলেও, উত্তরে কিন্তু জমিয়ে ব্যাট করতে শুরু করেছে ঠান্ডা হাওয়া। আবহাওয়া দফতরের ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, দার্জিলিংয়ের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৩ ডিগ্রি, কালিম্পংয়ে ৭ ডিগ্রি, শিলিগুড়িতে ৯ ডিগ্রি। এমনকী জলপাইগুড়িতেও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নেমে হয়েছে ৯ ডিগ্রি। বছরের এই সময়ে উত্তরবঙ্গে মূলত ভিড় বাড়ে পর্যটকদের। এই শীতের মরসুমে আরও ভিড় বাড়বে বলে আশা করা যাচ্ছে। দক্ষিণের ক্ষেত্রে ঘূর্ণাবর্তের পরে ফের তাপমাত্রা কিছুটা নামবে বলে আশা করা যাচ্ছে। তবে চলতি বছরের শেষ দুই দিনও ঘূর্ণাবর্তের দাপট থাকবে। ফলে ডিসেম্বরের শেষেও খুব সম্ভবত জাঁকিয়ে ঠান্ডা অনুভব করতে পারবেন না বঙ্গবাসী। কনকনে ঠান্ডার জন্য নতুন বছরের দিকেই তাকিয়ে রয়েছেন সকলে। 

আকাশ মেঘলা থাকার কারণে শীতের আমেজ উধাও হতে পারে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলিতে। বুধবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রয়েছে ১৭.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। যা স্বাভাবিকের থেকে প্রায় ৪ ডিগ্রি বেশি। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা পেরোতে পারে ২৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বর্ষশেষে শীতের আমেজ উধাও হলেও ঝঞ্ঝা কেটে যাওয়ার পর নতুন বছরের শুরুতে ফের জাঁকিয়ে ঠান্ডা ফিরতে পারে বলে জানানো হয়েছে হাওয়া অফিসের তরফে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here