ধর্মঘট : সকাল থেকেই অবরোধ শুরু, ব্যাহত ট্রেন চলাচল

0
424

দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ নাগরিকত্ব আইন, জাতীয় নাগরিকপঞ্জি, জাতীয় জনসংখ্যা পঞ্জির বিরোধিতায় এবং দেশের অর্থনৈতিক মন্দা, কর্মসংস্থানের বেহাল দশা প্রভৃতি কয়েক দফা দাবিতে আজ ২৪ ঘণ্টা সাধারণ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে বিভিন্ন ট্রেড ইউনিয়নগুলি। সকাল থেকেই সেই ধর্মঘটের প্রভাব দেখা গেল রাজ্যজুড়ে।

বনগাঁয় বামফ্রন্টের মিছিল ছবি-দীপ বিশ্বাস৷

এই ধর্মঘটের ডাক দেওয়ার পরেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেছিলেন ধর্মঘট হতে দেবে না প্রশাসন। অন্যদিকে এই ধর্মঘট সফল করতে মরিয়া বাম ও কংগ্রেস ট্রেড ইউনিয়নগুলি। সকাল থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় মিছিল বের হয়। রাস্তা, রেলপথ অবরোধ করা হয়। ফলে ব্যাহত হয় ট্রেন পরিষেবা।

সকালে যশোর রোডের চিত্র -দিব্যেন্দু পোদ্দার

একনজরে দেখে নিন ধর্মঘটের প্রভাব কোথায় কোথায় পড়েছে।

  • হুগলির জায়গায় জায়গায় ধর্মঘটের প্রভাব পড়েছে। সকাল থেকেই হিন্দমোটর, রিষড়া, চন্দননগরে অবরোধ করেন ট্রেড ইউনিয়ন কর্মীরা।
  • চাঁপদানি নর্থব্রুক, ডালহৌসি ও অ্যাঙ্গাস জুটমিল বন্ধ করে দেওয়া হয়।
  • বেলা বাড়তেই হিন্দমোটর, শেওড়াফুলি, বৈদ্যবাটি প্রভৃতি স্টেশনে অবরোধ শুরু হয়। তার জেরে বন্ধ হয়ে যায় ট্রেন পরিষেবা।
  • ধর্মঘটের প্রভাব দেখা গিয়েছে উত্তর ২৪ পরগনার একাধিক জায়গায়। শ্যামনগরের ২৪ নম্বর রেলগেটের কাছে অবরোধ হয়।
  • ব্যারাকপুরের ঘোষপাড়া রোডের উপর শ্যামনগর পোষ্ট অফিস মোড়ে টায়ার জ্বালিয়ে পথ অবরোধ করে কংগ্রেস ও সিপিএম।
  • মধ্যমগ্রামে সর্মথকরা ট্রাকের চাকার হাওয়া খুলে দেওয়ায় বন্ধ হয়ে যায় যান চলাচল। পাল্টা বন্ধ বিরোধী মিছিল বার করে তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীরা। তৃণমূল ও বাম সমর্থকদের মিছিল এবং পাল্টা মিছিলে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে মধ্যমগ্রাম স্টেশন রোড। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে ঘটনাস্থলে রয়েছে বিশাল পুলিশবাহিনী।
  • শিয়ালদহ হাসনাবাদ শাখার হৃদয়পুর স্টেশনের কাছে রেললাইন থেকে চারটি তাজা বোমা উদ্ধার হয়েছে। রেললাইনে বোমা পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। ঘটনাস্থলে যান বম্ব স্কোয়াডের সদস্যরা। তাজা বোমাগুলি উদ্ধার করে পুলিশ। বোমা পড়ে থাকার কারণে রেল চলাচল বন্ধ হয়ে যায় সকাল থেকেই।
  • হাবড়ায় ট্রেন অবরোধ করে এসইউসিআই কর্মীরা। প্রথমে তারা হাবড়া রেল স্টেশনে অবরোধ করে। পরে যশোর রোড অবরোধ করে। দফায় দফায় অবরোধে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে জনজীবন।
  • অশোকনগরে স্টেশন লাগোয়া রেলগেট ও যশোর রোড অবরোধ করল সিপিএম কর্মীরা। জ্বালানো হয় টায়ার ।
  • কাঁচরাপাড়া স্টেশনে রেল অবরোধ করা হয়। শ্যামনগরের ২২ নম্বর রেলগেটে অবরোধ করে সিটু। বেলঘরিয়ায় রেল অবরোধ হয়।
  • সাধারণ ধর্মঘটের মিশ্র প্রভাব পড়েছে মুর্শিদাবাদ জেলাতেও। বুধবার সকালে ভাগীরথী এক্সপ্রেস বহরমপুর স্টেশন ছেড়ে কলকাতার উদ্দেশে রওনা দিয়েছে। যদিও স্টেশনে এবং ট্রেনে যাত্রীর সংখ্যা ছিল খুবই কম। পাশাপাশি বহরমপুর বাস স্ট্যান্ডে বেসরকারি বাসের এখনও পর্যন্ত দেখা মেলেনি। তবে সরকারি বাস কিছু চলাচল করছে। পাশাপাশি পুলিশ প্রশাসন যথেষ্ট সক্রিয় অবস্থায় রাস্তায় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মোড়গুলোতে টহল দিচ্ছে। বাসস্ট্যান্ডে যাত্রী সংখ্যাও খুব কম। যদিও দূরপাল্লার পণ্যবাহী ট্রাক চলাচল করছে।
  • যদিও ধর্মঘট মোকাবিলায় বাড়তি উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্যের পরিবহণ দফতর। যাত্রী হয়রানি রুখতে অন্যান্য দিনের থেকে এ দিন ২২ শতাংশ বাড়তি বাস পথে নামবে বলে জানা গিয়েছে। পরিবহণ দফতর দফতর সূত্রে খবর, যেখানে ৯০০টি রাজ্য সরকারি বাস পথে চলে সেখানে এ দিন ১,১৫০টি বাস। দক্ষিণবঙ্গ পরিবহণ নিগমের তরফে চলবে ৮২৬ বাস। উত্তরবঙ্গ পরিবহণ নিগম ৬০৫টির বদলে পথে নামাবে ৬৫৫টি বাস।

  • বেসরকারি বাস, ট্যাক্সি, অ্যাপ ক্যাব নির্ভর ট্যাক্সি সংগঠনের তরফ থেকে জানা গিয়েছে, বাম শ্রমিক সংগঠনগুলোর ডাকা বনধে তারা শামিল হচ্ছে না। ফলে সড়কপথে পরিবহন ক্ষেত্রে বাংলায় বনধের কোনও প্রভাব পড়বে না বলে মনে করছেন অনেকাংশ।
  • এদিনের বন্ধের মধ্যেও স্বাভাবিক ছিল পেট্রাপোল সীমান্তের আমদানি-রপ্তানির কাজ এবং যাত্রী পরিবহনও ছিল অন্যান্যদিনের মত স্বাভাবিক৷এদিন সকাল থেকে রপ্তানিকারী গাড়ি বাংলাদেশের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে,তবে বাংলাদেশ থেকে এ দেশে আসা যাত্রীদের সংখ্যা যথেষ্ট কম ছিল, যারা এপার বাংলায় এসেছেন তাদের মধ্যে বেশির ভাগ যাত্রী ট্রেন অবরোধের ফলে নাকাল হয়েছেন।
  • বুধবার সকালে বন্ধের ছবি গুলি তুলেছেন দীপ বিশ্বাস,দিব্যেন্দু পোদ্দার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here