দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ এ কোন হেমন্ত? যেখানে নীল আকাশ, হিমেল উত্তুরে হাওয়া নেই। মেঘে ঢাকা আকাশ৷ ঝিরিঝিরি বৃষ্টি পড়ছে। কলকাতা-সহ গাঙ্গেয় বঙ্গের এমন পরিস্থিতি দেখে বঙ্গবাসীর মনে এমন প্রশ্ন ওঠাইতো স্বাভাবিক।

হেমন্তের শেষ লগ্নে এমন বৃষ্টিভেজা স্যাঁতস্যাঁতে আবহাওয়ার পিছনে অবশ্য উত্তুরে বাতাসের অবদানও কম নয় বলে আবহবিদেরা জানিয়েছেন। কেন্দ্রীয় আবহাওয়া বিভাগ জানাচ্ছে,বায়ুমণ্ডলের উপরের স্তরে উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে শুষ্ক, ঠান্ডা হাওয়া বয়ে আসছে। উল্টো দিকে বঙ্গোপসাগর থেকে উষ্ণ এবং আর্দ্র জলীয় বাষ্প বায়ুমণ্ডলের নীচের স্তরে ঢুকছে। বিপরীত চরিত্রের এবং বিপরীতমুখী দুই বায়ুর সংমিশ্রণে কলকাতা-সহ উপকূলীয় জেলাগুলির আকাশে স্থানীয় ভাবে মেঘ তৈরি হয়ে বৃষ্টি হচ্ছে।

জাঁকিয়ে শীতের প্রত্যাশায় আমবাঙালি অনেক দিন ধরেই আশা নিয়ে বসে রয়েছে। মেঘ, বৃষ্টির জেরে স্যাঁতস্যাঁতে ঠান্ডা থাকলেও শীতের আমেজ কিন্তু সে ভাবে মিলছে না। এমন মেঘ, বৃষ্টির আবহাওয়াও অনেকের না-পসন্দ। তাই প্রশ্ন উঠছে, শীতের চেনা ঝকঝকে আকাশ কবে মিলবে?

আবাহওয়া দফতর সূত্রের খবর, সপ্তাহের শেষে জাঁকিয়ে শীতের আমেজ রাজ্যে। আবহাওয়া পরিষ্কার হচ্ছে, তাপমাত্রা নামছে। আগামী সপ্তাহেই হুড়মুড়িয়ে শীতকাল ঢুকে পড়বে রাজ্যে। উত্তরবঙ্গেও শীতের আমেজ। উত্তুরে হাওয়া দাপট বাড়ছে। আগামী দুদিন কুয়াশার সতর্কতা।

আজ কলকাতায় সকালের দিকে আংশিক মেঘলা আকাশ, বেলা বাড়লে পরিষ্কার আকাশ। রাতের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের ওপরে ছিল। আগামী কয়েকদিনে আরও কমবে রাতের তাপমাত্রা। আজ সকালে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৮.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৬.১ ডিগ্রি। বাতাসে জলীয়বাষ্পের সর্বোচ্চ পরিমাণ ৯৬ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টি হয়েছে ৪.৫ মিলিমিটামি।
দক্ষিণবঙ্গে মূলত পরিষ্কার আকাশ।

কলকাতা, পূর্ব মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় সকালের দিকে আংশিক মেঘলা আকাশ। পূর্ব মেদিনীপুর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা।

শনিবার থেকে নীচে নামবে কলকাতার তাপমাত্রা। পূবালি হাওয়ার প্রভাব কমবে, বাড়বে উত্তুরে হাওয়ার দাপট। আগামী কয়েকদিন শুষ্ক আবহাওয়া রাজ্যে। উত্তরবঙ্গে আগামী কয়েকদিন তাপমাত্রার তারতম্যে জলীয়বাষ্প থাকায় ঘন কুয়াশা হতে পারে।

আগামী কয়েকদিন পশ্চিমী ঝঞ্ঝা নতুন করে ঢুকবে না উত্তর-পশ্চিম ভারতে। বৃষ্টি ও তুষারপাতের সম্ভাবনা জম্মু-কাশ্মীর, লাদাখ, মুজাফফরাবাদ, হিমাচল প্রদেশ, উত্তরাখণ্ড এবং উত্তর প্রদেশের কিছু অংশে। হিমাচল প্রদেশ, উত্তরাখণ্ড, লাদাখ, জম্মু-কাশ্মীরে তুষারপাতের সম্ভাবনা। আগামী কয়েকদিন তাপমাত্রা কমবে উত্তর-পশ্চিম ভারত এবং পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলিতে।

পূবালি অক্ষরেখা বিস্তৃত শ্রীলঙ্কা থেকে পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরের অন্ধ্র উপকূল পর্যন্ত। এর প্রভাবে অন্ধ্র, তামিলনাড়ু উপকূলে বৃষ্টি হবে। বৃষ্টি হবে কেরল, পণ্ডীচেরিতেও। উত্তর-পূর্ব মৌসুমি বায়ু আরব সাগরের অক্ষরেখার প্রভাবে দক্ষিণ ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে বৃষ্টির পূর্বাভাস।

অসম, মণিপুর, মিজোরাম, ত্রিপুরা-সহ উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলিতে আগামী কয়েকদিন কুয়াশার সম্ভাবনা।

প্রসঙ্গত, এ দিন কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৯.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, স্বাভাবিকের থেকে ৪ ডিগ্রি বেশি। পারদ পতন শুরু হলে এই তাপমাত্রা কোথায় গিয়ে ঠেকবে তা নিয়েও নানা জল্পনা শুরু হয়েছে। আবহাওয়া সংক্রান্ত বিভিন্ন বেসরকারি ওয়েবসাইটের দাবি৷

আগামী সপ্তাহে হু-হু করে পারদ পতন হতে পারে। কলকাতার তাপমাত্রা ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশপাশেও নেমে যেতে পারে।তবে অনেকে এ-ও বলছেন, আবহাওয়ার মতিগতি বোঝা ক্রমশ কঠিন হয়ে উঠছে। তাই পৌষের শুরুতেই শীত ধুন্ধুমার ব্যাটিং করবে কিনা, সেটাই এখন লাখ টাকার প্রশ্ন!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here