সৃজিতা শীল , কলকাতা :

১৪ ফেব্রুয়ারি সরস্বতী পুজো। বসন্ত পঞ্চমীর আগে হাতে রয়েছে আর মাত্র হাতে গোনা কয়েকটি দিন। স্বাভাবিক কারণেই চূড়ান্ত ব্যস্ততা কুমোরটুলিতে। মাটির কাজ প্রায় শেষ। রঙের কাজও সেরে ফেলেছেন অনেকে। কোথাও কোথাও চোখ আঁকাও হয়ে গিয়েছে। বাকি কাজ বলতে রয়েছে শাড়ি পরানো আর অঙ্গসজ্জা। সময়ে কাজ ‘ডেলিভারি’ দিতে দিনরাত কাজ করছেন সাজশিল্পীরাও। সরস্বতী পুজোর আগে কুমোরটুলি ঘুরে দেখল দেশের সময় অনলাইন। দেখুন ভিডিও

সরস্বতী পুজো এলেই মনে পড়ে আগের দিন রাত থেকে থার্মোকল, বেতের বেড়া জোগাড় করে পাড়ায় পাড়ায় ছেলেমেয়েদের প্যান্ডেল বাঁধা, ঠাকুর আনার হিড়িক । আর প্যান্ডেলের চারধারে পাড়ার ছেলেমেয়েদের আঁকা টানিয়ে প্রদর্শনী । আগের দিন রাতেই ঠাকুর, দশকর্মার বাজার, ফলফলাদির বাজার সেরে ফেলা। কেন না রাত পোহালেই পুজোর তোড়জোড় । এখন সেই চিত্রটা খানিকটা হলেও বদলেছে। দুর্গাপুজোর পাশাপাশি সরস্বতী পুজোতেও লেগেছে থিমের ছোঁয়া । কোথাও থিম না হলেও প্যান্ডেলে থাকছে রকমারি।

কলকাতার কুমোরটুলিতে প্রতি বছরই কোনও না কোনও নতুন ঢঙে সেজে ওঠে প্রতিমা। এ বছরেও অন্যথা হয় নি তার । এবার প্রতিমা শিল্পীদের স্টুডিওতে দেখা গেল থিমের বাহার । কোথাও মা হাসছেন কোথাও বা মায়ের পঞ্চরূপ । আবার কোথাও বা সাবেকি।

আগামী ১৪ফেব্রুয়ারি বুধবার বাগ্‌দেবীর আরাধনা হবে স্কুল-কলেজ থেকে অফিস-ক্লাবে বাড়িতেও। কলকাতার কুমোরটুলিতে চলেছে তারই প্রস্তুতি। প্রতিমায় চলছে শেষ মুহূর্তের তুলির টান।

মাঘ মাসের শুক্লপক্ষের পঞ্চমী তিথিতে পালিত হয় বসন্ত পঞ্চমী, এই দিনেই বিদ্যার দেবী সরস্বতীর আরাধনা করা হয়। কারণ বসন্ত পঞ্চমীতে ব্রহ্মার মুখ থেকে দেবী সরস্বতী আবির্ভূতা হন বলে এদিন তাঁর উপাসনা করা হয়। সরস্বতী পুজো ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে বিশেষ ভাবে পালনীয় একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠান। তাই এ রাজ্যে বেশিরভাগ স্কুল, কলেজে দেবী সরস্বতীর পুজো করা হয়ে থাকে। এর পাশাপাশি পাড়ায় প্যান্ডেল করেও সরস্বতী ঠাকুরের পুজো করা হয়। এছাড়া গৃহস্থ বাড়িতেও মা সরস্বতী পুজোর আয়োজন করা হয়ে থাকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here