দেশের সময় :নতুন পোশাক আর নতুন সাজ, কখনো ক্যামেরার সামনে, প্রতিদিনই যেন নিজেকে নতুন রূপে পাওয়া। ম্যাগাজিনের পাতায়, টেলিভিশনের পর্দায় বা রাস্তার ধারের বড় বড় বিলবোর্ডে শোভা পায় মডেলদের ছবি। ঝলমলে এই স্বপ্নের জগৎ নিয়ে কমবেশি সবারই আগ্রহ আছে। অনেকেরই মনে এই সুপ্ত ইচ্ছা থাকে, সেই ইচ্ছা পূরণের সুযোগ করে দিল সীমান্ত শহর বনগাঁর পোষাকের প্রতিষ্ঠান নিভা। দেখুন ভিডিও

গত শনিবার বনগাঁ নীলদর্পণ অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ‘ বঙ্গসুন্দরী ফ্যাশন শো ও বিউটি কনটেস্ট 2023 ‘ । জমকালো এই আসর ২৬ বছর পর বনগাঁয় ফিরলো বলে দাবি উদ্যোক্তাদের ৷


সর্বশেষ ১৯৯৭ সালে নিভা এ প্রতিযোগিতার আয়োজক ছিল। বহুল প্রত্যাশিত বঙ্গসুন্দরী ফ্যাশন শো ও বিউটি কনটেস্ট প্রতিযোগিতার ২ তম আসর বসেছিল এবার। ২০২৩-এর ৩০ ডিসেম্বর শনিবার নীলদর্পণ অডিটোরিয়ামে এ ফাইনাল প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয় বলে জানিয়েছেন নিভার কর্ণধার তপন চক্রবর্তী। নতুন প্রতিভা তুলে ধরতেই তাদের এই উদ্যোগ বলে জানান তপন বাবু৷

নারীর শারীরিক সৌন্দর্য ছাড়া তার বুদ্ধিমত্তা,বিচার বোধ এই বিষয়গুলো নিয়ে নিভার উদ্যোগে গত ১৬ ডিসেম্বর শনিবার থেকে শুরু হয় ” বঙ্গসুন্দরী ফ্যাশন শো ও বিউটি কনটেস্ট “।

এই প্রতিযোগিতায় শুধু হাঁটা, মুখমণ্ডলের সৌন্দর্য বিচারের মাপকাঠি নয়। দেখা হয়েছে প্রতিযোগীদের প্রতিভা। তার উপরেই বিশেষ নজর দিয়েছেন বিচারক মণ্ডলীরা। তপন বাবুর কথায় এই প্রতিযোগিতার বিচারকেরা যা দেখতে চেয়েছেন তা হল একজন প্রতিযোগী তিনি বয়সের তুলনায় মানসিকভাবে কতটা আধুনিক, কতটা সক্রিয় বা আশাবাদী এই বিষয় গুলোই বিচার করা হয়েছে এবং তার সাথে সেই মানুষের মানসিক গঠন কি রকম সেটাই মূলত দেখে নেওয়া হয়েছে ৷

এই অনুষ্ঠানে যারা প্রতিযোগী হিসাবে অংশগ্রহণ করেছেন, তাদের জন্য একটি প্রশ্নমালা ভর্তি করতে হয়েছিলো । যার মারধ্যমে বুঝে নেওয়া হয়েছিল প্রতিযোগিদের মানসিক গঠন সম্পর্কে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে তার মঞ্চের উপস্থাপনা। সব কিছু মিলিয়ে একজন প্রতিযোগী বিজয়ী হয়ে উঠেছেন। এই প্রতিযোগিতার প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিনের বিচারক হিসাবে ছিলেন মৌলি রায়, জীৎ গণ, মধুবন্তি দাস ,কাইস কালাম,ঝর্ণা দাস, অজয়, পার্বণী ও ময়ূর জয়সওয়াল, সোমা দেঘরিয়া ও মনপ্রীত সিং ৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here