দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ আরও শিথিল হল রাজ্যের কোভিডবিধি। খোলার অনুমতি দেওয়া হল জিম। এছাড়া আউটডোর শ্যুটিং, টিভি প্রোগ্রাম এবং যাত্রায় অনুমতি দিয়েছে নবান্ন।

গত ১৫ জানুয়ারি নবান্নের তরফে কোভিডবিধি শিথিল করার বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছিল। তাতে বলা হয়েছিল ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত বিধিনিষেধের মেয়াদ বাড়ছে। তবে বিয়েবাড়িতে ৫০ জনের বদলে এখন থেকে উপস্থিত থাকতে পারবেন ২০০ জন। খোলা মাঠে মেলা করা যাবে, সেই অনুমতিও দিয়েছিল নবান্ন। সেই বিজ্ঞপ্তিরই এদিন আরও সংযোজন হল। আগামীকাল ১৮ জানুয়ারি থেকে তা কার্যকর হবে।

বলা হয়েছে, এখন থেকে জিম খোলা যাবে ৫০ শতাংশ মানুষ নিয়ে। রাত ৯টা পর্যন্ত তা খোলা রাখা যাবে। সেখানকার কর্মীরা যাতে ভ্যাকসিন নেন সকলে, তা নিশ্চিত করতে হবে। জিমের ভিতর মানতে হবে কোভিডবিধি। কোভিড নেগেটিভ রিপোর্ট দেখিয়ে তবেই জিমে ঢোকা যাবে।

৫০ শতাংশ দর্শক নিয়ে যাত্রার অনুমতিও দেওয়া হয়েছে আউটডোর ভেন্যুর ক্ষেত্রে। ইনডোরে থাকতে পারবেন ২০০ জন। রাত ৯টা পর্যন্ত তা চলবে।
সিনেমা আর টিভি প্রোগ্রামের আউটডোর শ্যুটিংয়ের অনুমতিও দিয়েছে নবান্ন। তবে সবটাই করতে হবে কড়াভাবে কোভিডবিধি মেনে।

গত ২৪ ঘণ্টায় একধাক্কায় কমলো রাজ্যের সংক্রমণ। স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন বলছে, একদিনে নতুন সংক্রমণ হয়েছে ৯৩৮৫ জনের। একদিনে করোনায় মারা গেছেন ৩৩ জন। এই সংখ্যাও আগের চেয়ে কম। ফলে অনেকেই মনে করছেন, রাজ্যে যে গত কয়েক দিন ধরে কড়া বিধি জারি হয়েছে, তারই ছাপ পড়েছে পরিসংখ্যানে।

তবে গোটা রাজ্যে যে সংক্রমণ, তাতে শীর্ষে রয়েছে কলকাতাই। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যের করোনা আক্রান্তদের মধ্যে ১,৮৭৯ জনই কলকাতার। তবে এই সংখ্যা আগের দিনের তুলনায় বেশ খানিকটা কম। এর পরেই আছে উত্তর ২৪ পরগনা, আক্রান্ত সেখানে ১,৮৬৩ জন। এই জেলায় তার আগেরদিন সংক্রমণের সংখ্যা ছিল এর প্রায় দ্বিগুণ। এর পরেই হুগলি, সংক্রমিত ৫৫২ জন। হাওড়ায় ৪৭৯ জন।

সব মিলিয়ে রাজ্যে মোট সংক্রমণ ১৯ লক্ষ ছাড়িয়ে গেল। এখনও পর্যন্ত রাজ্যে করোনায় মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২০ হাজার ১২১। রাজ্যে মোট করোনাজয়ীর সংখ্যা ১৭ লক্ষ ২৮ হাজার ৩৪০। গত ২৪ ঘণ্টায় পজিটিভিটি রেট ২৬.৪৩ শতাংশ, সুস্থতার হার ৯০.৬৩ শতাংশ। তবে নিম্নমুখী কোভিড গ্রাফ স্বাভাবিকভাবেই খানিক স্বস্তি দিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here