সাইকেল সারাতে দিয়ে ফেরত পাওয়া যাচ্ছে না, কেরল পুলিশে অভিযোগ ১০ বছরের কিশোরের

0
275

দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ দু’মাস ধরে দোকানে পড়েছিল দুই ভাইয়ের সাইকেল। কিছুতেই সারিয়ে দিচ্ছিল না দোকানদার। ফোনেও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না দোকানদারের। তার মধ্যে সাইকেলের ওই দোকানও ছিল বন্ধ। শেষ পর্যন্ত আর কোনও উপায় না পেয়ে পুলিশকে চিঠি লিখেছে ওই দুই খুদের একজন। বয়স মাত্র ১০। ক্লাস ফাইভের ওই পড়ুয়া আবিন কেরলের কোঝিকোড়ের বাসিন্দা। মেপ্পায়ুর থানায় চিঠি লিখে সাহায্য চেয়ছে ওই কিশোর।

https://www.facebook.com/keralapolice/photos/a.135262556569242/2504084799686994/?type=3

২৫ নভেম্বর পুলিশকে চিঠি লিখে অবিন জানিয়েছিল ৫ সেপ্টেম্বর স্থানীয় একটি সাইকেলের দোকানে নিজের এবং ভাইয়ের সাইকেল সারাতে দিয়েছিল সে। কিন্তু তারপর প্রায় দু’মাস কেটে গেলেও সাইকেল ফেরত পায়নি তারা। বারবার দোকানদারকে ফোন করার পরেও সাইকেল সারিয়ে ফেরত দেননি তিনি। বরং যখনই দোকানে গিয়েছে তখনই তারা দেখেছে দোকান বন্ধ রয়েছে। পাশাপাশি আবিন এও জানিয়েছে যে তাদের বাড়িতে এমন কেউ নেই যিনি গিয়ে সাইকেল খুঁজে নিয়ে আসবেন। তাই স্কুলের নোটবুকের পাতা ছিঁড়ে পুলিশকে চিঠি লিখে সবটা জানিয়েছে সে।

ছোট্ট আবিনের এমন অভিযোগ পেয়ে তৎপর হয়েছিল কেরল পুলিশও। যোগাযোগ করা হয় ওই সাইকেল দোকানদারের সঙ্গে। তিনি জানিয়েছে বেশ কয়েকদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন। তারপর তাঁর ছেলের বিয়েও ছিল। সব মিলিয়ে দোকান খোলার সময় পাননি তিনি। তবে খুব তাড়াতাড়িই ওই দুই ভাইয়ের সাইকেল সারিয়ে ফেরত দেবেন বলে কথা দেন ওই দোকানদার।ইতিমধ্যেই সাইকেল ফেরতও পেয়ে গিয়েছে আবিন এবং তার ভাই। কেরল পুলিশ ফেসবুকে একটি পোস্ট শেয়ার করে বৃহস্পতিবার জানিয়েছে সেকথা।

দুই কিশোরের অভিযোগ পেয়ে কেরল পুলিশ যে এত তৎপরতার সঙ্গে কাজ করেছে, সামান্য ব্যাপার বলে এড়িয়ে যায়নি সেই ঘটনায় খুশি নেটিজেনরা। নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয়েছে কেরল পুলিশের ওই পোস্ট। প্রায় চার হাজার শেয়ার হয়েছে সেটি। ৬৫ হাজারেরও বেশি মানুষ লাইক করেছেন ওই পোস্টে। শুধু তাই নয়, কুর্নিশ জানিয়ে প্রায় সকলেই কেরল পুলিশের উদ্দেশে লিখেছেন, “দারুণ কাজ। ওই কিশোরদের সাহায্য করার জন্য ধন্যবাদ।”

Previous article১ টাকায় চিকিৎসা, ১০ টাকায় খাবার,বিনামূল্যে শিক্ষা মহারাষ্ট্রে, আগামী ৫ বছরের পরিকল্পনা ঘোষণা করল সেনা-সরকার
Next articleগণধর্ষণ কালীঘাটে,দিনে-দুপুরে তুলে নিয়ে গেল দুই নাবালিকাকে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here