সম্পাদকীয়ঃ–ভারতবাসী মাত্রই নিশ্চয়ই আমাদের দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারি বাজপেয়ীর সেই বিখ্যাত কথাটা মনে আছে,তিনি বলেছিলেন প্রশাসকের চেয়ারে বসে শুধু রাজধর্ম পালন করা উচিত।রাজধর্ম পালনের কথা তিনি মনে করিযে দিয়েছিলেন নরেন্দ্র দামোদর দাস মোদীকে।

গুজরাট দাঙ্গায় যখন গুজরাট সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠতে শুরু করে তখন অটলজী দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তদানিন্তন গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে পরিস্কার জানিয়ে দেন,প্রশাসনের চেয়ারে বসে তাঁকে রাজধর্ম পালন করতে হবে।কোন সম্প্রদায়ের প্রতি তাঁর ব্যক্তিগত আনুগত্য থাকতেই পারে,কিন্তু রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে বসে সব সম্প্রদায়ের মানুষের নিরাপত্তার দায়িত্ব তাঁকে নিতে হবে,সেটাই ভারতের সংবিধানের বিধান অনুযায়ী রাজধর্ম।

প্রাক্তন ও প্রয়াত প্রধানমন্ত্রীর সেই বক্তব্য ভারতীয় রাজনীতিতে একেবারে মিথ হয়ে থেকে গেছে।তবে দুঃখের কথা এদেশের রাজনীতিকরা বার বার লঙ্ঘন করেছেন এই রাজধর্ম পালনের দায়।সেই কারণেই গোটা দেশ জুড়ে এখনও সাম্প্রদায়িকতার হাতছানি,এথনও দাঙ্গার ভ্রুকুটি,এখনও দলীয় আগ্রাসনের উদগ্র ইচ্ছে।রাজনৈতিক উচ্ছাকাঙ্খায় নেতা নেত্রীরা ভুলে যাচ্ছেন প্রশাসনের দায়িত্ব নেবার আগে তাঁদের মন্ত্রগুপ্তির শপথ নিতে হয়।

তাতে বলতে হয় সংবিধানের রীতিকে অক্ষুন্ন রাখার কথা,বলতে হয় মন্ত্রী হিসেবে কোন পক্ষপাতিত্ব না করার কথা।সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের পর যে নতুন সরকার তৈরি হল সেই সরকার কোন ধর্মীয় সম্প্রদায়ের প্রতি পক্ষপাতিত্ব করবে না এটাই আমরা প্রত্যাশা করবো।ভরত শুধু হিন্দুধর্মের মানুষের দেশ নয়,ভারত বহুু ধর্ম ও ভাষাভাষিদের দেশ,বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্যই ভারতের মর্মবাণী।এদেশের প্রধানমন্ত্রী যেন তাঁর চেয়ারে বসে তাঁরই প্রায়াত প্রাক্তন পূর্বসুরির সেই অসাধারণ কথাটি বিস্মৃত না হন, প্রশাসকের চেয়ারে বসে রাজধর্ম পালন করতে হয়।আমরা রাজধর্ম পালনের কথা মনে করিয়ে দিতে চাইবো আমাদের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও।তিনি যেভাবে বলছেন অনেক উন্নয়ন করেও যখন মানুষ অনেক জায়গাতে তাঁকে ভোট দেন নি,তাই তিনি আর উন্নয়নের কথা ভাববেন না,এ কথা প্রশাসকের চেয়ারে বসা এক ব্যক্তির মুখে মানায় না।

যে গরু দুধ দেয় শুধু তারই লাথি খাবো,এসব কথা রাজধর্ম পালনের প্রতি আগ্রহ প্রকাশ করে না।তাঁর মনে রাখা উচিত যে অসংখ্য মানুষ তাঁর বিরুদ্ধে এবার ভোট দিয়েছেন তিনি তাদেরও মুখ্যমন্ত্রী,মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে বসে তাঁদের প্রতিও দায় তিনি অস্বীকার করতে পারেন না।সাধারণ মানুষকে শুধু ভোটার হিসেবে না দেখে নাগরিক হিসেবে দেখতে শিখলে,রাজধর্ম পালনে সুবিধা হয়।সেই শিক্ষায় রপ্ত হতে শিখুন সবাই।সর্বত্রই পালিত হোক রাজধর্ম এটাই আমাদের একান্ত প্রত্যাশা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here