রাজনৈতিক প্রতিবাদেও শালিনতা জরুরি

0
782

সম্পাদকীয়ঃ–

দেশ জুড়ে শুরু হয়েছে লেকসভা নির্বাচনের প্রক্রিয়া,আর সেই প্রক্রিয়া শুরু হতেই রাজনৈতিক নেতা-নেত্রী থেকে শুরু করে সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে রাজনৈতিক বাদ-বিবাদের জেরে উঠে আসছে নানাবিধ অশ্লীল ও কদর্য অশালীন প্রচার।যেমন এ রাজ্যে দুজন অভিনেত্রী নির্বাচনে প্রার্থী হবার সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয়ে গেল তাঁদের পোষাক নিয়ে টিপ্পনি করা।বিকিনি পড়া নায়িকাদের ছবি দিয়ে বলা শুরু হল এঁরা কি এই পোষাকেই ভোট প্রচারে যাবেন!! এরা মানুষের কী উপকার করতে পারে যারা মেকাপ মেখে,সান গ্লাস পড়ে সব সময় দামি গাাড়িতে করে ঘুরে বেড়ায়?

বলাই বাহুল্য এগুলো প্রতিবাদের ভাষা নয়,এগুলো বিদ্রুপ আর ব্যঙ্গের ভাষা।এগুলো অশ্লীল-অসভ্যতা।মেয়েদের পোষাক নিয়ে কটাক্ষ করাটা আমাদের সামাজিক ব্যধিতে পরিণত হয়েছে।তাই সিনেমার অভিনেত্রী নুসরত আর মিমির পোষাক দেখিয়েই তাদের খারাপ মেয়ে বলে চিহ্নিত করার নোংরা প্রতিয়োগিতায় নেমে পড়েন আমাদের সমাজের একশ্রেণীর মানুষজন।বিপক্ষ দলের কর্মী ও নেতাদের শালীনতা হীন ভাবে আক্রমণও শুরু করেছেন কেউ কেউ।বিজেপির এক নেতা সম্প্রতি কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী সম্পর্কে বলেছেন রাহুল গান্ধী যদি পাপ্পু হয় উনি হলেন পাপ্পি।মহিলাদের অপদস্থ ও অপমান করার ক্ষেত্রে পেছিয়ে নেই আমাদের রাজ্যের মন্ত্রীরাও।ফিরাদ হাকিম যেমন দক্ষিণ কলকাতার সিপিএম প্রার্থী সম্পর্কে বলেছেন,উনাকে কেউ চেনে না,উনি আসলে কে তুমি নন্দিনী,আগে তো দেখিনি।সেখানেই না থেমে ফিরহাদ বলে দিয়েছেন এর পর বিজেপি সেখানে কোন বিদেশী মহিলা মাল দাঁড় করিয়ে দিতে পারে।

এসব কথা বার্তা থেকে বোঝা যায় এঁরা মহিলাদের সম্মান করার কিংবা রাজনৈতিক বিরোধিতা করার ক্ষেত্রও কীভাবে শালিনতা বজায় রাখতে হয় তার শিক্ষা টুকুও রপ্ত করতে পারেন নি।ক্ষমতার অলিন্দে চেপে মানুষের অভিভাবক হয়ে গেলেও এঁরা থেকে গেছেন অশিক্ষিত-অশালীন।আর সেই জন্যই আমাদের রাজনীতি এত কদর্য ও নোংরা হয়ে উঠতে শুরু করেছে।রাজনৈতিক প্রতিবাদ করতে হবে,তবে তা শালিনতা বজায় রেখেই করতে হবে,এবং সেটা করা যায়।তাতে নিজের রাজনীতির ধার একটুও কমে না।

নির্বাচনের প্রাককালে আমাদের তাই সকল রাজনৈতিক দল ও সাধারণ মানুষের কাছে একান্ত আবেদন থাকবে শালিনতাবজায় রেখে সকলকে সম্মান দিয়েই রাজনৈতিক লড়াই হোক।এমনিতে আমাদের সমাজে এখন নানা বিষ ছড়িয়ে যাচ্ছে রাজনীতির লড়াইকে কেন্দ্র করে আর বিষ যেন না ছড়ায় তা লক্ষ্য রাখা সবার দায়িত্ব হয়ে উঠুক।আর রাজনৈতিক লড়াই যেন খুন ও রক্তপাতকে আহ্বান না করে তার অনুরোধ ও আবেদনও রইল সবার কাছে।

Previous articleমালদায় আজ রাহুলের সভা নিয়ে‌ উদ্বেগের সুর কংগ্রেসেই
Next articleচাঁচলের মাঠে চাঁচাছোলা রাহুল, মোদীকে তুলোধনা করে বললেন, মমতার দলও অত্যাচারী

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here