দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ প্রয়াত হলেন যাদবপুরের প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ তথা শিক্ষাবিদ কৃষ্ণা বসু। গত কয়েক মাস তিনি বার্ধক্যজনিত অসুখে ভুগছিলেন। শনিবার সকালে ইএম বাইপাসের ধারের একটি হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯০ বছর।

প্রয়াত সাংসদের পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন দুপুর ১টা নাগাদ বাড়িতে কৃষ্ণা বসুর দেহ নিয়ে যাওয়া হবে। তারপর দেহ শায়িত থাকবে নেতাজি ভবনে। সেখানেই তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে পারবেন অনুরাগীরা।

১৯৩০ সালের ২৬ জানুয়ারি ঢাকা শহরে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। প্রায় চার দশক সিটি কলেজের অধ্যাপিকা ছিলেন কৃষ্ণাদেবী। আট বছর সিটি কলেজের অধ্যক্ষ পদও সামলেছিলেন তিনি। যাদবপুর থেকে পরপর তিনবার সাংসদ হয়েছিলেন তিনি। ১৯৯৬ সালে কংগ্রেসের টিকিটে লড়ে যাদবপুর থেকে প্রথমবার সাংসদ হয়েছিলেন কৃষ্ণা বসু। এরপর ৯৮ ও ৯৯-এর লোকসভা ভোটে তৃণমূলের হয়ে দাঁড়িয়ে সাংসদ হন তিনি।

সাংসদ থাকার সময়ে বিদেশ মন্ত্রকের সংসদীয় কমিটির চেয়ারম্যান হয়েছিলেন কৃষ্ণা বসু। নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর ভাইপো চিকিৎসক শিশির বসুর স্ত্রী ছিলেন তিনি। তাঁর পুত্র সুগত বসুও যাদবপুর থেকে তৃণমূলের সাংসদ হয়েছিলেন। নেতাজি রিসার্চ ব্যুরোর চেয়ারপার্সন হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছিলেন প্রয়াত শিক্ষাবিদ৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here