দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ বৃহস্পতিবার দুপুরে নদিয়ার কৃষ্ণনগরে প্রশাসনিক বৈঠক সেরে হেলিকপ্টারে কলকাতায় ফিরলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নদিয়া থেকে কপ্টারে চেপে কলকাতায় পৌঁছন বেলা আড়াইটে নাগাদ।

মুখ্যমন্ত্রীর হেলিকপ্টারে চেপে কলকাতায় ফেরা নিয়ে নানা মহলে চর্চা শুরু হয়েছে। তিনি কৃষ্ণনগর থেকে ওড়ার সময় সেখানে আকাশ ছিল মেঘলা। কলকাতায় নামার সময়ও মহানগরীর আকাশ ছিল মেঘাচ্ছন্ন।

মুখ্যমন্ত্রী কলকাতায় অবতরণের পর বৃষ্টি শুরু হয়। এই আবহাওয়ার মধ্যে মুখ্যমন্ত্রীর কপ্টারে কলকাতায় ফেরা নিয়ে বিভিন্ন মহলে চর্চা শুরু হয়েছে ইতি মধ্যেই৷ বুধবারের মর্মান্তিক ঘটনার প্রেক্ষিতে। সেনা সর্বাধিনায়ক বিপিন রাওয়াত যে কপ্টারে উড়ছিলেন সেটি ছিল বিশ্বমানের সামরিক হেলিকপ্টার। সেখানে মুখ্যমন্ত্রীর কপ্টার অসামরিক উড়ান।

ওয়াকিবহাল মহলের একাংশের বক্তব্য, আবহাওয়া অনুকূল না থাকলে এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল কখনই মুখ্যমন্ত্রীর কপ্টার ওড়ার অনুমতি দিত না। কিন্তু এই বক্তব্যের পাশাপাশি অনেকেই বলছেন, যে আবহাওয়া ছিল তাতে কপ্টার এড়াতে পারলেই ভাল হত।

অনেকেই বলছেন বিপিন রাওয়াততের কপ্টারের কী ধরনের গোলযোগ ছিল তা স্পষ্ট হওয়ার আগে পর্যন্ত কপ্টার নিয়ে ওড়ার ক্ষেত্রে অনেক বেশি সর্তকতা অবলম্বন করা দরকার। ঝুঁকি যত কমিয়ে আনা যায় ততই ভাল হয়। প্রসঙ্গত, গত মঙ্গলবার আবহাওয়ার কারণেই কপ্টারের বদলে শতাব্দী এক্সপ্রেসে চেপে মালদহ পৌঁছেছিলেন মমতা। যদিও তখন জাওয়াদের প্রভাবে অতি গভীর নিম্নচাপ ছিল। তবে এদিনও নিম্নচাপের প্রভাব রয়েছে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে।

মুখ্যমন্ত্রী কলকাতায় অবতরণ করার পর নবান্নে পৌঁছে যান।  বিকেল পাঁচটায় মন্ত্রিসভার বৈঠক রয়েছে। আবহাওয়া বিষয়টি যে মুখ্যমন্ত্রীকেও মাথায় রাখতে হয়েছিল তা স্পষ্ট হয়েছে প্রশাসনিক বৈঠকের তাঁর একটি মন্তব্যে। তিনি বলেন, তাড়াতাড়ি করুন। আবহাওয়া খারাপ। আমাকে ফিরতে হবে। অনেকে মনে করছেন, মুখ্যমন্ত্রী নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা অফিসারদের এ ব্যাপারে তাঁকে পরামর্শ দেওয়া উচিত ছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here