দেশের সময়: একদিকে যখন থমথমে ভাটপাড়া, তখন ও দিকে উত্তপ্ত হতে শুরু করল আমডাঙা। ফের রাজনৈতিক কর্মী খুন উত্তর ২৪ পরগনার আমডাঙায়৷ অভিযোগ, বিজেপি করার অপরাধে আমডাঙার বইগাছিতে খুন করা হয়েছে নাজিমুল করিমকে৷ খুনের পিছনে তৃণমূলের হাত দেখছে গেরুয়া শিবির৷ ব্যক্তিগত শত্রুতার জেরে খুন বলে দাবি শাসক দল তৃণমূল ও পুলিশের৷

নাজিমুল কে? জানা গিয়েছে এই যুবক আগে সিপিএম করতেন। লোকসভার আগেই যোগ দেন বিজেপি-তে। ব্যারাকপুর কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিং-এর হয়ে নিজের গ্রামে প্রচারে সক্রিয় ছিলেন তিনি। গেরুয়া শিবিরের অভিযোগ, রাজনৈতিক আক্রোশেই খুন করা করা হয়েছে নাজিমুলকে।স্থানীয় সূত্রে খবর, শুক্রবার রাতে ওষুধ কিনতে যাচ্ছিল বিজেপি কর্মী নাজিমুল৷ মাধপথে তার পথ আটকায় বেশ কয়েকজন যুবক৷ পরে নাজিমুলকে বাঁশ, রড দিয়ে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ৷রাস্তায় রক্তাক্ত অবস্থায় নাজিমুলকে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রাই আমডাঙা ব্লক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে তাকে নিয়ে যায়৷ পরে তাকে স্তানান্তরিত করা হয় বারাসত হাসপাতালে৷ কিন্তু সেখানে নাজিমুলের শারীরির অবস্থার অবনতি হলে আরজিকরে নিয়ে আসা হয়৷ সেখানেই মৃত্যু হয় ওই বিজেপি কর্মীর৷খুনের জন্য মুখ্যমন্ত্রীকেই দায়ী করেন বারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং৷ তাঁর অভিযোগ, ‘‘যেসব এলাকায় তৃণমূল হেরে গিয়েছে, সেখানেই সন্ত্রাসের আবহ কায়েম করছে শাসক দল৷ এইসব হচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মদতেই৷ পুলিশ নিষ্ক্রিয় থাকছে৷’’ সন্দেশখালি, ভাটপাড়ার পর আমডাঙায় ফের খুন রাজনৈতিক দলের কর্মী৷ শনিবার বিরেলেই আমডাঙায় যাওয়ার কথা রয়েছে সাংসদ অর্জুন সিংয়ের৷ইতিমধ্যেই নাজিমুল খুনের কিনারা করতে মেনে মানুষের অসন্তোষের মুখে পড়তে হয়েছে পুলিশকে৷ পুলিশ শাসক দলের হয়ে কাজ করছে বলে অভিযোগ তাদের৷ স্থানীয় রাস্তাও অবরোধ করা হয়৷ পালটা পুলিশের দাবি, মৃত ব্যক্তি, মদ্যপ অবস্থায় আরেক জনের সঙ্গে বচসায় জড়়িয়ে পড়েছিল৷ পরে তাদের মধ্যে মারামারি হয়৷ তার জেরেই রক্তাক্ত হয় নাজিমুল৷ একই সুর স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের কথাতেও৷আমডাঙার এই গজটনার পর আরও একবার সামনে এল উত্তর চব্বিশ পরগনার সার্বিক আইনশৃঙ্খলার ছবিটা। ভাটপাড়ার শেষ দুই হত্যার পর নবান্নে উচ্চপর্যায়ের বৈঠক করে ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার বদল করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। তন্ময় রায়চৌধুরীকে সরিয়ে ওই জায়গায় বসানো হয় মনোজ বর্মাকে। সিপি বদলে কি আদৌ এই জনপদে শান্তি ফেরানো সম্ভব? আটচল্লিশ ঘণ্টার মধ্যেই ফের আইনশৃঙ্খলার করুণ দশা সামনে চলে এল।বিকেলে এই এলাকায় যাওয়ার কথা ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং-এর। ওই সময়ে ফের উত্তেজনা ছড়াতে পারে বলে আশঙ্কা প্রশাসনের। গ্রামে মোতায়েন করা হয়েছে ব্যাপক পুলিশ বাহিনী।

স্থানীয় সূত্রে খবর, শুক্রবার রাতে ওষুধ কিনতে যাচ্ছিল বিজেপি কর্মী নাজিমুল৷ মাধপথে তার পথ আটকায় বেশ কয়েকজন যুবক৷ পরে নাজিমুলকে বাঁশ, রড দিয়ে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ৷রাস্তায় রক্তাক্ত অবস্থায় নাজিমুলকে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রাই আমডাঙা ব্লক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে তাকে নিয়ে যায়৷ পরে তাকে স্তানান্তরিত করা হয় বারাসত হাসপাতালে৷ কিন্তু সেখানে নাজিমুলের শারীরির অবস্থার অবনতি হলে আরজিকরে নিয়ে আসা হয়৷ সেখানেই মৃত্যু হয় ওই বিজেপি কর্মীর৷খুনের জন্য মুখ্যমন্ত্রীকেই দায়ী করেন বারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং৷ তাঁর অভিযোগ, ‘‘যেসব এলাকায় তৃণমূল হেরে গিয়েছে, সেখানেই সন্ত্রাসের আবহ কায়েম করছে শাসক দল৷ এইসব হচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মদতেই৷ পুলিশ নিষ্ক্রিয় থাকছে৷’’ সন্দেশখালি, ভাটপাড়ার পর আমডাঙায় ফের খুন রাজনৈতিক দলের কর্মী৷ শনিবার বিরেলেই আমডাঙায় যাওয়ার কথা রয়েছে সাংসদ অর্জুন সিংয়ের৷ইতিমধ্যেই নাজিমুল খুনের কিনারা করতে মেনে মানুষের অসন্তোষের মুখে পড়তে হয়েছে পুলিশকে৷ পুলিশ শাসক দলের হয়ে কাজ করছে বলে অভিযোগ তাদের৷ স্থানীয় রাস্তাও অবরোধ করা হয়৷ পালটা পুলিশের দাবি, মৃত ব্যক্তি, মদ্যপ অবস্থায় আরেক জনের সঙ্গে বচসায় জড়়িয়ে পড়েছিল৷ পরে তাদের মধ্যে মারামারি হয়৷ তার জেরেই রক্তাক্ত হয় নাজিমুল৷ একই সুর স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের কথাতেও৷আমডাঙার এই গজটনার পর আরও একবার সামনে এল উত্তর চব্বিশ পরগনার সার্বিক আইনশৃঙ্খলার ছবিটা। ভাটপাড়ার শেষ দুই হত্যার পর নবান্নে উচ্চপর্যায়ের বৈঠক করে ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার বদল করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। তন্ময় রায়চৌধুরীকে সরিয়ে ওই জায়গায় বসানো হয় মনোজ বর্মাকে। সিপি বদলে কি আদৌ এই জনপদে শান্তি ফেরানো সম্ভব? আটচল্লিশ ঘণ্টার মধ্যেই ফের আইনশৃঙ্খলার করুণ দশা সামনে চলে এল।বিকেলে এই এলাকায় যাওয়ার কথা ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং-এর। ওই সময়ে ফের উত্তেজনা ছড়াতে পারে বলে আশঙ্কা প্রশাসনের। গ্রামে মোতায়েন করা হয়েছে ব্যাপক পুলিশ বাহিনী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here