দেশের সময় কলকাতা আবারও গরমের দাপট ফিরছে কলকাতা-সহ গাঙ্গেয় বঙ্গে। বাতাসে বাড়তি আর্দ্রতার ফলে বাড়ছে অস্বস্তিও।

দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টিতে সাময়িক স্বস্তির দিন ফুরতে চলেছে৷ পারদ আপাতত স্বাভাবিকের সামান্য নিচে থাকলেও অচিরেই তা গতি বাড়াবে। বাতাসে বাড়তি আর্দ্রতার কারণে আকাশ আংশিক মেঘলা থাকবে।

বুধবার পূর্ব মেদিনীপুর এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হালকা বৃষ্টি হতে পারে। তবে এই দুই জেলা ছাড়া দক্ষিণবঙ্গের অন্য কোনও জেলায় বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই। তবে উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, কোচবিহার এবং আলিপুরদুয়ার জেলার কয়েকটি এলাকায় বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। বৃষ্টির পাশাপাশি বইতে পারে ৩০ থেকে ৫০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়াও। উত্তরবঙ্গের এই জেলাগুলিতে রবিবার পর্যন্ত বৃষ্টি চলতে পারে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস।

বৃহস্পতিবার থেকেই বাড়বে গরমের দাপট। সঙ্গে থাকবে আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তিও। চলতি সপ্তাহে কয়েক দিনের মধ্যে ৪ থেকে ৫ ডিগ্রি তাপমাত্রা বাড়তে পারে। ফলে শীঘ্রই ফের পারদের কাটা ৪০ ডিগ্রি ছুঁইছুঁই হয়ে যাবে। তবে এবার আর শুকনো গরম নয়, জ্যৈষ্ঠের আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তিকর আবহাওয়ায় ভুগবে বঙ্গবাসী।

আলিপুর আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, শনিবারের মধ্যে কলকাতার তাপমাত্রা পৌঁছে যাবে ৩৭ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। অন্যদিকে, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া সহ পশ্চিমের জেলার তাপমাত্রা ৪০ থেকে ৪২ ডিগ্রি ছুঁয়ে যেতে পারে। চলতি সপ্তাহেই পশ্চিমের জেলার তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি পেরোবে। সারাদিন আংশিক মেঘলা আকাশ থাকবে। বেলা বাড়লে বাড়বে গরম ও অস্বস্তি। উপকূলের কয়েকটি জেলাতে সন্ধে বা রাতে বজ্রবিদ্যুৎ সহ হালকা বৃষ্টির সামান্য সম্ভাবনা রয়েছে।

বুধবার কলকাতার আকাশ থাকবে মেঘলা। দিনের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের নিচে থাকলেও রাতের তাপমাত্রা থাকবে স্বাভাবিকের উপরে। বেলা বাড়লে বাড়বে রোদের প্রখরতা। বাতাসে দলীয় বাষ্প থাকায় আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তিও চরমে উঠবে। বুধবার সকালে কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৮.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের চেয়ে ১.১ ডিগ্রি বেশি। মঙ্গলবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা  ছিল ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিকের চেয়ে ০.৮ ডিগ্রি বেশি। হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুযায়ী, আগামী ২৪ ঘণ্টায় কলকাতার তাপমাত্রা ২৭ থেকে ৩৬ ডিগ্রি থাকবে।
 

বুধবার থেকে দক্ষিণবঙ্গের সমস্ত জেলাগুলিতেই তাপমাত্রা ক্রমশ বাড়বে। চলতি সপ্তাহে পশ্চিমের জেলাগুলিতে তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস পার হতে পারে। শুক্রবারের মধ্যে তিন থেকে চার ডিগ্রি তাপমাত্রা বাড়তে পারে। আজ থেকে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ কমবে। বৃহস্পতিবার থেকে প্রায় কোনও জেলাতেই বৃষ্টির পূর্বাভাস নেই। অস্বস্তিকর আবহাওয়া বজায় থাকবে।

 এদিকে তাপমাত্রার পারদ যখন বাড়ছে সেই সময় নতুন করে ঘূর্ণিঝড়ের ভ্রুকুটি। চলতি মাসের শেষে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে তৈরি হতে পারে একটি ঘূর্ণিঝড়। ওমানের দেওয়া সম্ভাব্য ঘূর্ণিঝড়টির নাম ‘রিমাল’ যার অর্থ ‘বালু’। ২০ থেকে ২৭ মে-র মধ্যে বাংলাদেশ এবং পশ্চিমবঙ্গের স্থলভাগে আছড়ে পড়তে পারে রিমাল, এমনই পূর্বাভাস দিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

আগামী শুক্রবার ১৭ই মে নতুন করে পশ্চিমী ঝঞ্ঝা আসবে। বর্তমানে বাংলাদেশ ও বিদর্ভ এবং আরব সাগরে ঘূর্নাবর্ত রয়েছে । দক্ষিণ পূর্ব ও পূর্ব মধ্য বঙ্গোপসাগরে আরও একটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হবে। যা থেকেই ঘূর্ণিঝড় হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যদিও সেই সম্ভাবনা এখনও পর্যন্ত খুব কম বলে জানাচ্ছে আবহাওয়া দফতর। অন্যদিকে, আগামী রবিবার দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু দক্ষিণ আন্দামান সাগর, দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর এবং নিকোবর দ্বীপপুঞ্জে পৌঁছে যাবে। 

শুক্রবার থেকে তাপমাত্রা ধীরে ধীরে বৃদ্ধি পেতে শুরু করবে। দক্ষিণবঙ্গের পাশাপাশি উত্তরবঙ্গেও গরম বাড়বে। তিন থেকে পাঁচ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত তাপমাত্রা বাড়তে পারে। তবে তাপপ্রবাহের পরিস্থিতি তৈরি হবে কি না, সেই বিষয়ে এখনও কিছু জানায়নি আবহাওয়া অফিস।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here