অর্পিতা বনিক বনগাঁ:

পঞ্চম দফার ভোটের প্রচারে মঙ্গলবার রাজ্যে এসেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। একই দিনে দু’টি জনসভা করার কথা তাঁর। শাহের প্রথম সভাটি হল বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের আর এস মাঠে ।বিজেপি প্রার্থী শান্তনু ঠাকুরের সমর্থনে। 

চার দফা নির্বাচন হয়ে গেছে দেশে। বাকি আর তিন দফার ভোট। কিন্তু বিজেপি এখনই সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে গেছে! বনগাঁয় শান্তনু ঠাকুরের সমর্থনে ভোট প্রচারে এসে এমনই দাবি করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। মোদীর নেতৃত্বে বিজেপি এই চার দফার পর কত আসন পেয়েছে সেটাও ব্যাখ্যা করেছেন তিনি। 

বনগাঁয় নির্বাচনী প্রচারে এসেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ কী বললেন তিনি, দেখুন ভিডি

এবারের লোকসভা নির্বাচনে ৩০০-র বেশি আসন পাবে ইন্ডি জোট, এমন দাবি সম্প্রতি করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনকী তিনি এও বলেন, বিজেপির ৪০০ পারের দাবি ‘জুমলা’ ছাড়া কিছু নয়, তারা টেনেটুনে ১৯৫ আসন পেতে পারে। কিন্তু মঙ্গলবার বাংলায় এসে অমিত শাহ একদম স্পষ্ট করে দিয়েছেন যে, বিজেপি এই চার দফা নির্বাচনে কত আসন পেয়েছে। তিনি দাবি করেছেন, ”এ পর্যন্ত ৩৮০টি লোকসভা আসনে ভোট হয়েছে। ইতিমধ্যে ২৭০ আসনে জয়ী মোদী। বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে।” এই প্রেক্ষিতেই বাংলার মানুষকে ফের একবার ৩০ আসন দেওয়ার আর্জি করেছেন অমিত শাহ। 

এবারের ভোটেও ইভিএম কারচুপির চেষ্টা করেছে বিজেপি, এমন অভিযোগ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি দাবি করেছেন, তৃণমূলে ভোট দিলে তা বিজেপিতে পড়ছে এমন মেশিনের সন্ধান পেয়ে তাঁরা সেই মেশিন বদল করিয়েছেন। এই বিষয়ে অমিত শাহ সরাসরি মমতাকে নিশানা করেন। বনগাঁর সভামঞ্চ থেকে বলেন, ”ইভিএম গড়বড়ের অভিযোগ করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু তিনি মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার সময়ও এই ইভিএম ছিল। তখন তো ভালই ছিল সব। কিন্তু এখন জনতা আপনাকে তাড়ানোর জন্য যখন ভোট দিচ্ছে তখন আপনি ইভিএম নিয়ে অভিযোগ করছেন।” 

বিজেপির ৪০০ আসন পাওয়ার দাবি যে আদতে বিভ্রান্তিমূলক, তা জোর গলায় দাবি করছে বিরোধী রাজনৈতিক শিবির। শুধু কংগ্রেস বা তৃণমূল নয়, সেফোলজিস্ট তথা সমাজকর্মী যোগেন্দ্র যাদবও দাবি করেছেন যে বিজেপির চারশ পার কোনও ভাবেই হচ্ছে না। তাঁর হিসাবে গত লোকসভার তুলনায় ৭০টি আসন কম পেতে পারে বিজেপি। মোদী-শাহর দল পেতে পারে ২৩৩টি আসন। আর এনডিএ পেতে পারে ২৬৮টি আসন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here