দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ করোনা ভাইরাসের চিকিৎসা এবার সরকারি হাসপাতালেও। রাজ্যের প্রথম মেডিক্যাল কলেজ হিসেবে আরজি কর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রস্তুত হয়ে গিয়েছে ১০টি বেডের একটি আইসোলেশন ওয়ার্ড। জরুরি বিভাগের ৯ তলায় তৈরি হয়েছে এই ইউনিট। পাঁচটি পুরুষ এবং পাঁচটি মহিলা বেডের পাশাপাশি তৈরি রয়েছে ২টি সিসিইউ ইউনিটও।

বৃহস্পতিবার থেকেই চালু হবে এই ওয়ার্ড। নোভেল করোনা ভাইরাস সন্দেহে কোনও ব্যক্তি আরজি করে এলে তাঁকে ভর্তি নিয়ে সমস্ত পরীক্ষা-নিরিক্ষা করা হবে। অভিজ্ঞ চিকিৎসক এবং টেকনিশিয়ান-সহ মোট সাতজনের টিমও একেবারে তৈরি। গত দু’দিন অর্থাৎ মঙ্গল এবং বুধবার হাসপাতালে এই বিশেষ আইসোলেশন ওয়ার্ডের জন্য চলেছে ওয়ার্কশপ। কী ভাবে পরীক্ষা-নিরিক্ষা করা হবে, কী ধরনের মাস্ক এবং পোশাক ব্যবহার করতে হবে, কী কী স্যাম্পেল সংগ্রহ করা প্রয়োজন, কী কী পরীক্ষা করা দরকার—-এই সমস্ত ব্যাপারে ওই ওয়ার্কশপে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে চিকিৎসক, টেকনিশিয়ান এবং নার্সদের।

অধ্যক্ষ শুদ্ধদন বটব্যাল জানিয়েছেন, মেডিসিন-চেস্ট-মাইক্রোবায়োলজি-ক্রিটিকাল কেয়ার বিভাগের চিকিৎসক এবং টেকনিশয়ান-সহ ৭ জনের টিম তৈরি। ওয়ার্ডের ট্রায়ালও হয়ে গিয়েছে। দু’দিনের ওয়ার্কশপের পর প্রস্তুত সকলেই। বৃহস্পতিবার থেকেই নোভেল করোনা ভাইরাস সংক্রমণ সন্দেহে কেউ এলে ভর্তি করা হবে এই আইসোলেশন ওয়ার্ডে।

এতদিন পর্যন্ত কেবল বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালেই চলছিল চিকিৎসা। তবে রাজ্যের প্রথম মেডিক্যাল কলেজ হিসেবে আরজি কর হাসপাতাল এবার আইসোলেশন ইউনিট তৈরি করে ফেলেছে। চিকিৎসা হবে সেখানেও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here