পিয়ালী মুখার্জী: বিদ্যুতের বিল আসলেই তা জমা দেওয়ার হিড়িকের মাঝে , বিলে লেখা সংখ্যা অনেক সময়ই বহু জনের চক্ষু চরকগাছ করে দেয়! বিদ্যুতের বিলের অঙ্ক কোনও মাসে বেড়ে গেলে , তা কীভাবে বেড়ে গেল , সেই সন্ধান করতে করতেই পরের মাসের বিল চলে আসে! আপামর ভারতবাসীর কাছেই বিদ্যুতের বিল একটি বড় ফ্যাক্টর সংসার খরচের মধ্যে।

এবার এই বিলের ক্ষেত্রে সারা দেশে আসতে চলেছে বড় পরিবর্তন। এর আগে এক নোটিফিকেশন দিয়ে সরকারের তরফে একথা জানানো হয়েছে।

বহু বছর আগে ভারতের ঘরে ঘরে ছিল ল্যান্ডলাইন ফোন। সেখানে মাসের ফোনের বিলের খরচ মাসের শেষে আসত। এরপর আসে মোবাইল। মোবাইল পরিষেবায় প্রিপেড অপশানে টাকা আগেই ভরিয়ে নিয়ে সেই অনুযায়ী খরচ করা যায়, আবার সারা মাসের খরচের পর টাকার বিল মেটানো যায়। ঠিক এভাবেই এবার থেকে মাসের বিদ্যুতের খরচের জন্য প্রিপেড মিটারের মাধ্যমে খরচ হবে বিদ্যুতের। সেই অনুযায়ী দিতে হবে টাকা। মঙ্গলবারই এই মর্মে একটি নোটিফিকেশন জারি করেছে সরকার।
কবের মধ্যে লাগু হবে স্মার্ট মিটার?

গোটা দেশের সমস্ত জায়গায় এবার স্মার্ট মিটার লাগানো হবে। কয়েকদিন আগেই সমস্ত সরকারী মন্ত্রককে এই নিয়ে বিদ্যুত্‍ মন্ত্রক নিজের অবস্থান জানান দিয়েছে। দেশের সমস্ত জায়গায় যাতে প্রিপেড মিটার বসানোর কাজ ২০২৫ সালের মধ্যে সম্পন্ন হয়ে যায়। বিশেষত যে সমস্ত জায়গায় চাষাবাদ হয়, সেখানে এমন স্মার্ট প্রিপেড মিটার বসবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে কেন্দ্রীয় বিদ্যুত্‍ মন্ত্রক। ফলে বাড়িতে আপাতত স্মার্ট প্রিপেড মিটার আবশ্যক।
কেন লাগানো হচ্ছে এই মিটার ?

জানা যাচ্ছে, কেবলমাত্র সারা দেশের বিদ্যুতের অপচয় বন্ধ করতেই এমন পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। বিদ্যুত্‍ যাতে বেশি খরচ হয়ে না যায়, তা নির্দিষ্ট মাপদণ্ডের মধ্যেই থাকে, তার জন্যই এমনটা করা হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে দেশের এনার্জি সেভিং এর জন্য এমন পদক্ষেপ সরকার নিতে বাধ্য হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।জানা গিয়েছে ২০২৫ সালের মার্চ মাসের মধ্যেই এমন মিটার ভারতের ঘরে ঘরে বসানো হবে। রাজ্যস্তরের বিদ্যুত্‍ বিভাগকে জানানো হয়েছে যে এই পরিস্থিতিতে খুব জোর ২০২৫ সালের মধ্যে ৬ মাস পর্যন্ত বাড়ানো হতে পারে এই মিটার লাগুর মেয়াদ।
যতটা টাকা দেওয়া হবে ততটাই বিদ্যুত্‍ মিলবে!

প্রিপেড ফোনের কার্ডের মতো করেই , যতটা টাকা এই বিদ্যুতের খরচের জন্য দেওয়া হবে, ততটা টাকারই বিদ্যুত্‍ একটি বাড়ি বা সংস্থা পাবে। এই নিয়মেই এবার থেকে বিদ্যুতের খরচ শুরু হবে। দেশের বহু জায়গায় বিদ্যুত এভাবেই বিতরণ করার কাজ শুরু হয়েছে। এরপর তা সারা দেশের ২০২৫ এর মধ্যে বিভিন্ন জায়গায় চলবে বলে জানিয়ে দিয়েছে কেন্দ্র। তবে কৃষি কাজের জন্য এমন মিটার বসবে না বলে জানানো হয়েছে। কেন্দ্রীয় বিদ্যুত্‍ মন্ত্রকের তরফে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here