৯০ বছর বয়সে মারা গেলেন আধুনিক বিজ্ঞাপনের জনক অ্যালেক পদ্মসি। তাঁর প্রয়ানের সাথে একটি অধ্যায়ের অবসান হল। আধুনিক বিজ্ঞাপনের জগতে যুগান্তকারী পরিবর্তন এসেছিল তাঁর হাত ধরেই। কামসূত্র লিরিল, হামারা বাজাজ –র বিজ্ঞাপনে এককথায় ইতিহাস তৈরি করেছিলেন তিনি। দেশে এক নম্বর বিজ্ঞাপন সংস্থা লিন্টাস নামে নিজের বিজ্ঞাপন সংস্থা খুলেছিলেন অ্যালেক। সেটি আজও এ দেশে এক নম্বর৷ মাত্র সাত বছর বয়স থেকে অভিনয় করতেন তিনি। দাদা ববি পদ্মসির পরিচালনায় শেক্সপীয়রের লেখা মার্চেন্ট অব ভেনিসে অভিনয় করেছিলেন তিনি। অত্যন্ত প্রাণচ্ছল ছিলেন অ্যালেক। জীবনে কোনও কঠিন পরিস্থিতিই তাঁকে হারাতে পারেনি। ২০১৬ সালে একটি সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছিলেন, ‘‌জীবন সবসময় প্রাণভরে আনন্দে বাঁচতে হয়। কোনও পরিস্থিতিই যাতে উদ্যোম কমিয়ে দিতে না পারে এই মনোভাব নিয়ে বাঁচা উচিত। জেনে রাখবে যেকোনও কঠিন পরিস্থিতির থেকে বেরিয়ে আসার একটা পথ আছে। আকাশ থেকে মেঘ কেটে যাওয়ার পর যে সূর্য ওঠে তার ঔজ্জল্য অনেক গুণ বেশি হয়। প্রত্যেকটা মুহূর্ত নতুন কিছু ভাবতে হয়। সেটাই জীবনের বাঁচার রসদ যোগায়।’‌ অভিনয়ের জগতের সঙ্গেও তাঁর বিশেষ যোগ ছিল। দাদা ববি পদ্মসির পরিচালনায় শেক্সপীয়রের লেখা মার্চেন্ট অব ভেনিসে অভিনয় করেছিলেন তিনি। গান্ধী ছবিতে জিন্নার ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন তিনি। তাঁর সেই অভিনয় আজও ইতিহাস হয়ে রয়েছে। দীর্ঘদিন তাঁকে দেখে জিন্না বলেই ডাকতেন অনেকে। লেক পদ্মসির প্রয়ানে শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। টুইটে মোদি লিখেছেন, বিজ্ঞাপনের জগত সবসময় তাঁকে মনে রাখবে। রাষ্ট্রপতি টুইটে লিখেছেন, তাঁর পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাই। অভিনেতা বোমন ইরানি, নিমরত কৌর, অনিস বাজমি সহ একাধিক বিশিষ্ট ব্যক্তি।

৯০ বছর বয়সে মারা গেলেন আধুনিক বিজ্ঞাপনের জনক অ্যালেক পদ্মসি। তাঁর প্রয়ানের সাথে একটি অধ্যায়ের অবসান হল। আধুনিক বিজ্ঞাপনের জগতে যুগান্তকারী পরিবর্তন এসেছিল তাঁর হাত ধরেই। কামসূত্র লিরিল, হামারা বাজাজ –র বিজ্ঞাপনে এককথায় ইতিহাস তৈরি করেছিলেন তিনি। দেশে এক নম্বর বিজ্ঞাপন সংস্থা লিন্টাস নামে নিজের বিজ্ঞাপন সংস্থা খুলেছিলেন অ্যালেক। সেটি আজও এ দেশে এক নম্বর৷ মাত্র সাত বছর বয়স থেকে অভিনয় করতেন তিনি। দাদা ববি পদ্মসির পরিচালনায় শেক্সপীয়রের লেখা মার্চেন্ট অব ভেনিসে অভিনয় করেছিলেন তিনি। অত্যন্ত প্রাণচ্ছল ছিলেন অ্যালেক। জীবনে কোনও কঠিন পরিস্থিতিই তাঁকে হারাতে পারেনি। ২০১৬ সালে একটি সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছিলেন, ‘‌জীবন সবসময় প্রাণভরে আনন্দে বাঁচতে হয়। কোনও পরিস্থিতিই যাতে উদ্যোম কমিয়ে দিতে না পারে এই মনোভাব নিয়ে বাঁচা উচিত। জেনে রাখবে যেকোনও কঠিন পরিস্থিতির থেকে বেরিয়ে আসার একটা পথ আছে। আকাশ থেকে মেঘ কেটে যাওয়ার পর যে সূর্য ওঠে তার ঔজ্জল্য অনেক গুণ বেশি হয়। প্রত্যেকটা মুহূর্ত নতুন কিছু ভাবতে হয়। সেটাই জীবনের বাঁচার রসদ যোগায়।’‌ অভিনয়ের জগতের সঙ্গেও তাঁর বিশেষ যোগ ছিল। দাদা ববি পদ্মসির পরিচালনায় শেক্সপীয়রের লেখা মার্চেন্ট অব ভেনিসে অভিনয় করেছিলেন তিনি। গান্ধী ছবিতে জিন্নার ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন তিনি। তাঁর সেই অভিনয় আজও ইতিহাস হয়ে রয়েছে। দীর্ঘদিন তাঁকে দেখে জিন্না বলেই ডাকতেন অনেকে। লেক পদ্মসির প্রয়ানে শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। টুইটে মোদি লিখেছেন, বিজ্ঞাপনের জগত সবসময় তাঁকে মনে রাখবে। রাষ্ট্রপতি টুইটে লিখেছেন, তাঁর পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাই। অভিনেতা বোমন ইরানি, নিমরত কৌর, অনিস বাজমি সহ একাধিক বিশিষ্ট ব্যক্তি।

শিল্প ও সংস্কৃতি জগতে তাঁর অবদানের জন্য ২০০০ সালে তাঁকে পদ্মশ্রী পুরস্কারে ভূষিত করে ভারত সরকার। ২০১২ সালে পেয়েছিলেন সঙ্গীত নাটক অ্যাকাডেমির ‘টেগোর রত্ন’ পুরস্কার/ভারতীয় বিজ্ঞাপন জগতে ব্র্যান্ড ভ্যালু তৈরিতে তাঁর জুড়ি মেলা ভার। যে আমুলের বিজ্ঞাপন আজও সাড়া ফেলে গোটা দেশে, সেই আমুলের বিজ্ঞাপনে সমসাময়িক বিষয় ব্যবহার করা শুরু করেছিলেন তিনিই। তিনি চলে গেলেন ঠিকই, কিন্তু কিংবদন্তি অ্যালেক, বিজ্ঞাপন জগতের আলোক চিত্র কে আলোকিত করে রেখে গেছেন নতুন প্রজন্মের কাছে।

Previous articleলালগোলা প্যাসেঞ্জারে মহিলা কামড়ায় আচমকা আগুন :
Next articleকাজল পরার এক্সক্লুসিভ টিপস!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here