দেশের সময় ওয়েব ডেস্কঃ ভারতের মধ্যে যতজন ব্যক্তিত্বের নাম সার্চ করা হয়েছে ইন্টারনেটে, সেই বিচারে সবার উপরে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ইয়াহু ইন্ডিয়ার সমীক্ষা অনুযায়ী ‘মোস্ট সার্চড’-এর প্রথম নাম নরেন্দ্র দামোদর দাস মোদীরই। সেলিব্রেটিদের মধ্যে সলমন খান, প্রিয়ঙ্কা চোপড়া, মহেন্দ্র সিং ধোনিও রয়েছেন এই তালিকায়।

রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের মধ্যে ২০১৯ সালে ইন্টারনেটে সবচেয়ে বেশি যাঁদের খুঁজেছে জনতা, সেই তালিকায় মোদীর পরেই রয়েছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু তাই নয়, ইয়াহু ইন্ডিয়ার বিচারে সবচেয়ে ক্ষমতাশালী মহিলা রাজনীতিক মমতাই।

এই তালিকায় নাম রয়েছে অভিনন্দন বর্তমানেরও। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে পাকিস্তানের বালাকোটে যে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালিয়েছিল ভারতীয় বায়ুসেনা, তখন পাকিস্তানের হাতে আটক হয়েছিলেন বায়ুসেনার উইং কম্যান্ডর অভিনন্দন। তারপর থেকে হু হু করে ইয়াহুর সার্চ ইঞ্জিনে উপরের দিকে উঠে এসেছে তাঁর নাম।

রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের যে দশজনের তালিকা প্রকাশ করেছে ইয়াহু, তাতে মোদী মমতার পরেই রয়েছেন প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। ১০ জনের মধ্যে রয়েছেন প্রাক্তন প্রয়াত অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলিও।

সেলিব্রেটিদের মধ্যে নেট দুনিয়ায় সবচেয়ে বেশি খোঁজ চলেছে বলিউডের ভাইজান তথা সলমন খানের। তারপর রয়েছেন অমিতাভ বচ্চন এবং অক্ষয় কুমার। আলাদা করে নায়িকাদের তালিকাও প্রকাশ করেছে ইয়াহু। তাতে দেখা যাচ্ছে সবার উপরে রয়েছেন সানি লিওন। তারপর প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জোনাস।

ক্রীড়াবিদদের মধ্যে একজন ফুটবলারও জায়গা পাননি প্রথম দশে। এই ক্ষেত্রে সবার উপরে রয়েছেন, এমএস ধোনি। দুই এবনহ তিনে রয়েছেন রোহিত শর্মা ও বিরাট কোহলি। চারে রয়েছেন শাটলার পিভি সিন্ধু।

সবচেয়ে বেশি যে জায়গাগুলির খোঁজ চলেছে সাইবার দুনিয়ায়, ভারতের মধ্যে সব জায়গাকে দশ গোল দিয়েছে অযোধ্যা। কাশ্মীর রয়েছে দু’নম্বরে। অবাক করা হলেও সত্যি, নির্ভয়ার ধর্ষণ কোথায় হয়েছিল, সেই জায়গা রয়েছে তিন নম্বরে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here