পিয়ালী মুখার্জী: কলকাতা

রাতের আকাশে প্রবল উল্কা বর্ষণের সময় এগিয়ে আসছে! চোখ ধাঁধানো মহাজাগতীয় দৃশ্য ২০২১-এর অগাস্টে দেখা যাবে আগেই জানিয়েছিল নাসা।

রাতের আকাশ ঘিরে শুধু স্বপ্নময় ঝলমলে জ্যোতিষ্কের সমাহার, আর তার মাঝেই প্রবল বেগে উল্কাদের ধেয়ে যাওয়ার ঘটনা।
এই মহাজাগতীয় এই অমোঘ সুন্দর দৃশ্য ২০২১ সালের অগাস্ট মাসে ১১ থেকে ১৩ তারিখ দেখা যেতে চলেছে। প্রবল গতিবেগে ধাবমান উল্কাদের এই বর্ষণ বা ‘মিটিওর শাওয়ার’ গোটা বিশ্বের জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের নজর কেড়েছে।

এই ধাবমান উল্কাদের নিয়ে বহু ধরনের গবেষণায় ব্রতী নানান বিশেষজ্ঞ আপাতত এই মহাজাগতীয় বিরল ঘটনার দিকে তাকিয়ে। একনজরে দেখা যাক মিটিওর শাওয়ার ঘিরে কিছু তথ্য, যা উল্কাবৃষ্টি নামেও খ্যাত। দেখে নেওয়া যাক উল্কা বৃষ্টির বিভিন্ন দিক।

কবে হবে উল্কা বর্ষণ?
জানা গিয়েছে অগাস্ট মাসের ১২ থেকে ১৩ তারিখে নর্দান হেমিস্ফিয়ার বা উত্তর গোলার্ধে দেখা যাবে। প্রসঙ্গত, গত ২৬ জুলাই মার্কিন মহাকাশ বিজ্ঞান গবেষণা সংস্থা নাসা এই বিষয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিল। জানানো হয় যে খালি চোখেও মানুষ এই বিরল মহাজাগতিক ঘটনার সাক্ষী থাকতে পারবেন। হঠাৎ করেই ১৫ থেকে শুরু করে ২০০ টি পর্যন্ত উল্কার বর্ষণ যে মহাজাগতিক ক্যানভাসে প্রবল আকার ধারণ করতে চলেছে তা বলাই বাহুল্য। তবে ১২ অগাস্ট রাতে উল্কা বর্ষণের তীব্রতা সবচেয়ে বেশি হবে বলে খবর।

রাতের আকাশে ধাবমান অগ্নিগোলকের স্বর্গীয় দৃশ্য-
মূলত ধূমকেতুর পার্টিক্যালসের অংশ থেকে পার্সিডগুলি আসে। এছাড়াও কয়েকটি ভেঙে যাওয়া গ্রহাণুর ধ্বংসাবশেষ থেকে আসে এই পার্সিডগুলি। এর খুব কাছ দিয়ে পৃথিবী নিজের কক্ষপথ ধরেই চললেই দেখা যায় মহাজাগতীয় আকাশের বুকে অন্ধকারের মধ্যে উল্কা রূপী অগ্নিগোলকের ধেয়ে যাওয়া। নাসার তথ্য অনুযায়ী ১১ থেকে ১৩ অগাস্ট পর্যন্ত চলবে এই প্রবল উল্কা বর্ষণ। এরপরও টানা ১০ দিন ধরে মধ্যরাতে ও ভর রাতে উত্তর গোলার্ধের আকাশে এই বর্ষণের কিছুটা অংশের দৃশ্য দেখা যাবে।

১২ অগাস্ট কখন দেখা যাবে?
জানা গিয়েছে, ১২ অগাস্ট ভোর রাতের ঠিক আগেই উত্তর গোলার্ধ থেকে দেখা যাবে মুহুমুর্হু উল্কা বর্ষণ। এই চলতি সপ্তাহের যে কোনও দিন মাঝরাতে বা ভোরে এমন উল্কা পাতের মন ভালো করা দৃশ্য দেখা যেতে পারে। যদি এমন অগ্নিগোলকের ছুটে যাওয়াকে প্রবল মনোযোগ দিয়ে উপভোগ করতে চান , তাহলে কোনও আলো সঙ্গে না রেখেই রাতের আকাশের দিকে নজর রাখুন। তবে আকাশ একমাত্র পরিস্কার হলেই দেখতে পাবেন এই উল্কা বর্ষণ। নাসার মতে ভোর রাতে শুধুমাত্র উত্তর আকাশের দিকে পয়েন্ট ধরে তাকিয়ে থাকলেই উল্কা বর্ষণ দেখা যাবে। পার্সিড ছাড়াও যাঁরা তারা দেখতে ভালোবাসের তাঁরা ডেল্টা অ্যাকুয়ারিড মিটিওর শাওয়ার দেখতে পাবেন বলে জানিয়েছে নাসা।

ঘণ্টায় কয়টি উল্কা দেখা যাবে?
আর্থস্কাই ডট ওআরজির রিপোর্ট অনুযায়ী বলা হচ্ছে, প্রতি ঘণ্টায় আজ থেকে প্রায় ৬০ টি উল্কা দেখা যাবে। যাঁরা দেখতে ভালোবাসেন, তাঁদের কাছে চাঁদের আলো সবসময়ই এই উস্কা দেখার ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করেছে। এদিকে যে পার্সিড উল্কাপাতের ঘটনা এবার ঘটতে চলেছে তা প্রথম দেখা যায় ১৮৬২ সালে। হোরেস টাটেল ও লুইস সুইট এটি প্রথম আবিষ্কার করেন।

উল্কা কী?
মূলত ধূমকেতুর অংশবিশেষকেই উল্কা বলা হয়ে থাকে। মূলত, ধূমকেতুর এই অংশ বিশেষ নিজের কক্ষ পথ থেকে বিচ্যূত হয়ে পৃথিবীর বায়ু মণ্ডলের দকে ধেয়ে আসে। আর পৃথিবীর বায়ুমন্ডলে তা প্রবেশ করলে ঘর্ষণের ফলে জ্বলে উঠতে থাকে। যা পরে অগ্নিগোলকে পরিণত হয়ে যায়। এই অগ্নিগোলকের বর্ষণই উল্কা বর্ষণ নামে খ্যাত। এদিন ১১ অগাস্ট রাত থেকে টানা ১৩ অগাস্ট পর্যন্ত উল্কা বর্ষণ দেখা যাবে ২০২১ সালে। ফলে উল্কাপাতের ঘটনা আজ প্রায় সমক্ষের অপেক্ষা। ইতিমধ্যেই মাঝরাত পর্যন্ত সময়ের মাঝে শুরু হয়ে গিয়েছে কাউন্টডাউন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here