দেশের সময়, কলকাতা : বিশ্ব জুড়ে করোনা পরিস্থিতি যেভাবে আবার উদ্বেগ বাড়াতে শুরু করেছে, তার দিকে সতর্ক নজর রাখছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

সম্প্রতি দেশে নতুন করে দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে করোনা। এরই মাঝে মানুষকে সতর্ক থাকার বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বৃহস্পতিবার বিকেলে নবান্ন থেকে সাংবাদিক বৈঠকে আবারও করোনা পরিস্থিতি নিয়ে রাজ্যবাসীকে সতর্ক করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। বিশেষ করে বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিংহোমগুলির কাছে মমতার পরামর্শ, যাতে আইসিসিইউগুলিকে ইনফেকশন মুক্ত রাখা হয়। বললেন, ‘স্পেন, আমেরিকায় একটু বেশি কোভিড হচ্ছে। এখানেও কেরলে হয়েছে। যাঁরা যাঁরা পারবেন, একটু বেশি করে মাস্ক ব্যবহার করবেন। আমরা জোর করে কিছু করছি না। ব্যবসায় কোনও সমস্যা হবে না। কিন্তু ভিড় জায়গায় যখন কেউ যাবেন, একটু সতর্ক থাকবেন।‘ তবে আতঙ্কিত না হওয়ারই পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী বলে, ‘ভিড়ের মধ্যে গেলে বা হাটে বাজারে গেলে মাস্ক পরুন, কারণ বাইরে থেকে অনেক মানুষ রাজ্যে আসেন, আমেরিকার একটি স্ট্রেন ছড়াচ্ছে, তাই বলছি ভয় না পেয়ে, আতঙ্ক না ছড়িয়ে, সাবধানতার জন্য মাস্ক পরুন।’ একই সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘প্রাইভেট নার্সিংহোমগুলোকে আমি একটু সতর্ক করতে চাইছি, তারা যেন আইসিসিইউ গুলোকে যথাসম্ভব সংক্রমণ মুক্ত রাখার চেষ্টা করে।

একটু সতর্ক থাকতে হবে, কারণ আবার নতুন করে কিছু কিছু জায়গায় কোভিডের নতুন ভার্সন দেখা যাচ্ছে। আমাদের এখানে, কেরালাতে কিছু খবর সামনে এসেছে। করোনা যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সেদিকে খেয়াল রাখুন।’

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘কোভিড নিয়ে যতটা পারেন সাবধানে থাকবেন। কারণ বড় বড় বাজারে যখন যায়…, বিশেষ করে এটা ছড়াচ্ছে প্রাইভেট নার্সিংহোম গুলির আইসিসিইউ থেকে। কালকে একটা বেসরকারি হাসপাতালে একজন মারা গিয়েছেন। যদিও কো-মর্বিডিটি ছিল।

তা সত্ত্বেও আইসিসিইউগুলিতে এত রোগীর চাপ থাকে যে তারা হয়ত সবসময় পরিষ্কার করতে পারে না। আমাদের সরকারি হাসতালাগুলি যেমন পরিষ্কার করা হয়…। স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকদের ডাকা হয়েছে। এখন থেকেই তৈরি থাকুন, যদি ভবিষ্যতে কিছু ঘটে…।’

মানুষকে কোনওভাবেই ভয় না পাওয়ার বার্তাও দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই, আতঙ্কেরও কোনও কারণ নেই, যেহেতু আমেরিকা-স্পেনে এটা বাড়ছে, একজনের হলে এটা ভীষণ ছোঁয়াচে। হয়ত মৃত্যুর হার কম, ছোঁয়াচে বেশি।

যাঁদের কো-মর্বিটিডি থাকে, যেমন হার্টের সমস্যা, বুকের সমস্যা, কিডনির সমস্যা, ফুসফুসের সমস্যা, তাঁদের বলুন মাস্কটা পরতে।’ মমতা বার্তা দেন, ‘কোভিড যাতে না ছড়ায়, সেইদিকে আমাদের নজর রাখতে হবে, আর যদি ছড়ায়, তাহলে তার জন্য এখন থেকে ব্যবস্থা রাখতে হবে।’

প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের মার্চ থেকে মাসের পর মাস করোনা সংক্রমণে ভুগেছে গোটা বিশ্ব। সেই তালিকা থেকে বাদ যায়নি বাংলা তথা ভারতও। সম্প্রতি করোনার আরও এক সাব-ভ্যারিয়ান্ট পাওয়া যায়। যার জেরে ছড়ায় আতঙ্ক। এদিন সেই বিষয়েই সচেতন করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here