দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ ছাত্র-ছাত্রীরা যাতে আরও মজা করে শিখতে পারে তার জন্য এক অভিনব উপায় বের করলেন স্পেনের এক স্কুলের শিক্ষিকা। বায়োলজির ক্লাসে অ্যানাটমি পোশাক পরে এলেন তিনি। এই ঘটনা আলোড়ন ফেলে দিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ওই শিক্ষিকার অভিনব বুদ্ধির তারিফ করেছেন নেটিজেনরা।

স্প্যানিশ ওই শিক্ষিকার নাম ভেরোনিকা ডকিউ। ১৫ বছর ধরে শিক্ষকতা করছেন তিনি। বর্তমানে প্রাইমারি স্কুলের বাচ্চাদের বিজ্ঞান, ইংরেজি, সমাজবিজ্ঞান, স্প্যানিশ-এর মতো বিষয় পড়ান তিনি। ৪৩ বছরের এই শিক্ষিকা বায়োলজির ক্লাসে অ্যানাটমি পোশাক পরে যান। এই পোশাকের উপর মানবদেহের ভিতরের সমস্ত অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের ছবি আঁকা ছিল। সেই ছবি দেখিয়েই পড়ান তিনি।

ভেরোনিকার স্বামী জানিয়েছেন, তাঁর স্ত্রী ইন্টারনেট ঘেঁটে পড়ানোকে আরও সহজ করে তোলার বিভিন্ন পথ খোঁজেন। এভাবেই তাঁর মাথায় এই আইডিয়া আসে। তারপরেই এই ধরনের পোশাক তৈরি করান তিনি।

সেদিন ক্লাসে ভেরোনিকার সঙ্গে তাঁর স্বামীও গিয়েছিলেন। তিনি বেশ কিছু ছবি তুলে তা সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করেন। তার ক্যাপশনে লেখেন, “আমার স্ত্রী ভেরোনিকাকে নিয়ে আমি গর্বিত। অ্যানাটমি পোশাক পরে মানবদেহের বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ পড়িয়েছে ও। ছাত্র-ছাত্রীরা খুব মজা করে সব কিছু শুনেছে। এইরকম একটা ক্লাসে উপস্থিত থাকতে পেরে আমি খুব খুশি।”

মুহূর্তেই এই পোস্ট ভাইরাল হয়ে যায়। নেট দুনিয়ায় রীতিমতো চর্চা শুরু হয়ে যায় ভেরোনিকাকে নিয়ে। যেভাবে পড়ানোর অভিনব ভাবনা তিনি দেখিয়েছেন, তার তারিফ শুরু করেন সবাই।

অবশ্য এই প্রথম নয়, এর আগেও অনেক কিছু পড়াতে গিয়ে কার্টুনের বিভিন্ন চরিত্র ব্যবহার করেছিলেন ভেরোনিকা। তাঁর আশা, অলস হয়ে বসে না থেকে সব শিক্ষক-শিক্ষিকারা যদি একটু পরিশ্রম করেন তাহলে বাচ্চাদের কাছে শিক্ষা আরও মজার হয়ে উঠতে পারে।

Previous articleepaper deshersamay.com
Next articleকাজটা কি ঠিক হয়েছে,ভাঙচুর করেছে যারা,তারা ভেবে দেখুক: মোদী

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here