দেশের সময়,বনগাঁ: রাজ্যের মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিককে খুনের চক্রান্ত করা হয়েছে। আর তা করেছে বিজেপি। মঙ্গলবার রাতে গোবরডাঙা থানায় নিজেই এইমর্মে লিখিত অভিযোগ দায়ের করলেন জ‍্যোতিপ্রিয় মল্লিক। তার অভিযোগ, ৫ মে সন্ধ্যায় এবং রাতে় তার এক সহকর্মীর ফোনে দু-দুবার ফোন করে এক বাংলাদেশী দুষ্কৃতী।

সে বলে গোবরডাঙায় বসে বিজেপি নেতা দেবদাস মন্ডল, শান্তনু ঠাকুর, মঞ্জুলকৃষ্ণ ঠাকুর এবং কৈলাস বিজয়বর্গীয়রা তাকে খুন করার চক্রান্ত করে। এর জন্য বাংলাদেশি দুষ্কৃতীদের সুপারি দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই পাঁচ লক্ষ টাকা অগ্রিম দেওয়া হয়েছে। কাজের শেষে আরও ২৫ লক্ষ টাকা দেওয়া হবে। যে ব‍্যক্তি এই ফোন করে সে নিজেও সুপারি কিলারদের মধ্যে একজন। যদিও সে এই কাজ থেকে সরে আসতে চায়। তারজন্য সে টাকাও দাবি করে। এই ঘটনায় নতুন করে বনগাঁয় রাজনৈতিক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে।


জ্যোতিপ্রিয় পুলিশকে জানিয়েছেন, প্রাণহানির আশঙ্কা করছেন তিনি। তাঁর কিছু হয়ে গেলে ওই ব্যক্তিরা দায়ী থাকবেন। লিখিত অভিযোগে জ্যোতিপ্রিয় দাবি করেছেন, রবিবার সন্ধ্যা ৭টা এবং রাত ৮টা ৫০ মিনিটে তাঁর এক সহকর্মীর মোবাইলে দু’টি নম্বর থেকে ফোন আসে। নিজেকে বাংলাদেশি দুষ্কৃতী বলে ফোনের ও প্রান্ত থেকে এক ব্যক্তি দাবি করে, জ্যোতিপ্রিয়কে খুনের জন্য বাংলাদেশ থেকে দেবদাস সুপারি কিলারদের নিয়ে আসছে। দুষ্কৃতীদের একটি দল ইতিমধ্যে এ দেশে ঢুকেছে।

বিজেপি বারাসত সাংগঠনিক জেলার সহ সভাপতি ‘দেবদাস মন্ডল’ বলেন, বিজেপি এই ধরনের নোংরা রাজনীতি করেনা,জ্যোতিপ্রিয় বাবুকে এখনই ভাল ভাবে চিকিৎসা করানোর প্রয়োজন,ওনার মাথার সমস্যা দেখা দিয়েছে,অবিলম্বে ওনাকে পাগলা গারদে পাঠানো উচিত। আগামী ২৩তারিখের পরে ওনার চাকরী চলে যাবে, তার চিন্তায় জ্যোতিপ্রিয় বাবু ভুল বকছেন৷এ সব ওনার নিজের তৈরী করা গল্প৷
মঙ্গলবার জ্যোতিপ্রিয় অবশ্য বলেন, ‘‘সুপারি কিলার লাগিয়েও লাভ হবে না। আমি বিচলিত নই।’’ এর আগে গাড়ি দুর্ঘটনায় শান্তনু জখম হওয়ার পরে বিজেপি শিবির দাবি করেছিল, শান্তনুকে খুনের ছক কষেছেন জ্যোতিপ্রিয়। সে অভিযোগ অবশ্য আগেই উড়িয়ে দিয়েছিলেন তিনি৷
অভিযোগ শুনে শান্তনু ঠাকুর বলেন, ‘‘জ্যোতিপ্রিয় বাবুর এত তাড়াতাড়ি মাথা খারাপ হয়ে যাবে ভাবিনি!২৩ এর আগেই ওনাকে রাঁচির পাগলা গারদে পাঠানো উচিত।’’

Previous articleRabindranath Tagore’s rare photo seller:Swapan
Next articleরবীন্দ্রনাথের দুর্লভ ছবির সংগ্রাহক স্বপন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here