দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ মহাত্মা গান্ধী ভারতের স্বনির্ভরতার প্রতীক হিসাবে তুলে ধরেছিলেন চরকা। সোমবার গান্ধীজির সবরমতী আশ্রমে গিয়ে চরকা কাটতে চেষ্টা করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া। এদিন আমদাবাদে আসার কিছুক্ষণ পরেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তাঁকে নিয়ে যান সেই আশ্রমে। সেখানে ট্রাম্প মহাত্মার ছবিতে মালা দেন। পরে তিনি ভিজিটর্স বুকে লেখেন, ‘টু মাই গ্রেট ফ্রেন্ড প্রাইম মিনিস্টার মোদী, থ্যাঙ্ক ইউ ফর দিস ওয়ান্ডারফুল ভিজিট।’সবরমতী আশ্রমে সস্ত্রীক ট্রাম্পের সঙ্গে ছিলেন তাঁদের মেয়ে ইভাঙ্কা ও জামাই জ্যারেড কুশনার। তাঁদের চায়ের সঙ্গে দেওয়া হয় গুজরাতের খাবার খামান, ব্রকোলি ও কর্ন সামোসা, আপেল পাই এবং কাজু কাটলি। তাঁরা ১৫ মিনিট কাটান ‘হৃদয় কুঞ্জ’-তে। সেখানে গান্ধীজি ছিলেন ১৩ বছর। এখান থেকেই তিনি ডান্ডি অভিযানের কথা ঘোষণা করেন।এদিন ট্রাম্পের বিমান পৌঁছবার আগেই জোরদার কাউন্টডাউন চলছিল আহমেদাবাদ বিমানবন্দরে। নিরাপত্তা থেকে অ্যাপ্যায়ন-সব কিছুরই ব্যবস্থা ছিল ‘এ ওয়ান।’ সর্দার বল্লভভাই পটেল বিমানবন্দর থেকে আহমেদাবাদ পর্যন্ত দীর্ঘ ২২ কিলোমিটার রাস্তা সেজে উঠেছিল নানা পোস্টার, হোর্ডিংয়ে। গরবা নেচে সপরিবার ট্রাম্পকে স্বাগত জানায় ঐতিহাসিক শহর আহমেদাবাদ। মোতায়েন করা হয় ১০ হাজার পুলিশকর্মী। তা ছাড়াও নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিল মার্কিন সিক্রেট সার্ভিস, ন্যাশনাল সিকিউরিটি গার্ড (এনএসজি) এবং স্পেশাল প্রোটেকশন গ্রুপ (এসপিজি)।সফর ঘিরেই উচ্ছ্বসিত ট্রাম্প-কন্যা ইভাঙ্কা। টুইট করে সেই উচ্ছ্বাসের কথা জানিয়েছেন তিনি। আবেগে ভেসে ইভাঙ্কা লিখেছেন, ‘‘দু’বছর পরে আবার ভারতে আসছি। বিশ্বের বৃহত্তম দুই গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের বন্ধুত্বের এই সমারোহে সামিল হতে পেরে আমি সম্মানিত।’’ট্রাম্প এবং মেলানিয়ার এটি প্রথম ভারত সফর হলেও ইভাঙ্কার দ্বিতীয়। ২০১৭ সালে ‘গ্লোবাল বিজনেস সামিট’-এ যোগ দিতে হায়দরাবাদে এসেছিলেন ইভাঙ্কা। ওই সম্মেলনেও ভারতের প্রতি মুগ্ধতা ও ভালবাসার কথা বলেছিলেন ট্রাম্প-কন্যা। অতীতেও একাধিক বার মোদী ও ভারতের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা শোনা গিয়েছে তাঁর মুখে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here