দেশের সময়,নিজস্ব প্রতিবেদন: নিউজিল্যান্ডেও জয়ের ধারা অব্যাহত ভারতীয় ক্রিকেট দলের। নেপিয়ারে প্রথম একদিনের ম্যাচে কিউয়িদের হেলায় হারাল বিরাট ব্রিগেড। ৮ উইকেটে ম্যাচ জিতে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ১-০ এগিয়ে গেল ভারতীয় দল। ম্যাচ জেতানো ইনিংস খেললেন বিরাট-ধবন জুটি।
এ দিন টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন কিউয়ি অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই ভারতীয় পেসারদের সামনে নড়বড়ে শুরু করেন মার্টিন গাপটিল(৫), কলিন মুনরো(৮)-র মত ব্যাটসম্যানরা। ১৮ রানের মধ্যে দুই কিউয়ি ওপেনারকেই সাজঘরে ফিরিয়ে দেন মহম্মদ শামি।
নেপিয়ারে স্লো উইকেটের ফায়দা তুলতে ভুল করেননি অধিনায়ক বিরাট কোহলি। দুই পেসার, দুই স্পিনার নিয়ে মাঠে নামেন তিনি। পঞ্চম ও ষষ্ঠ বোলিং বিকল্প হিসাবে দলে রাখেন দুই অলরাউন্ডার কেদার যাদব ও বিজয় শঙ্করকে। অধিনায়কের আস্থার মান রাখলেন ‘কুলচা’ জুটি। কুলদীপ-চহালের ঘুর্ণিতে ১৫৭ রানেই অলআউট হয়ে যায় নিউজিল্যান্ড। কুলদীপের ৪ উইকেট আর চহালের ২ উইকেটের

‘সৌজন্যে’ কোনও বড় পার্টনারশিপ গড়তে ব্যর্থ হয় কিউয়িরা। কেদারের দখলে এক উইকেট। আজ ছয় ওভার হাত ঘুরিয়ে দুটো মেডেনসহ ৩ উইকেট নিয়ে ভারতের দ্রুততম ১০০ উইকেটের(৫৫* ম্যাচ) মালিক হলেন মহম্মদ শামি। একমাত্র কেন উইলিয়ামসন(৬৪) ছাড়া কোনও কিউয়ি ব্যাটসম্যানই তিরিশ রানের গণ্ডি টপকাতে পারেননি।
মাত্র ৩৮ ওভারেই শেষ হয়ে যায় নিউজিল্যান্ডের ইনিংস।
১৫৮ রান তাড়া করতে নেমে স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে ব্যাটিং শুরু করেন রোহিত শর্মা এবং শিখর ধবন। রোহিত ১১ রানের মাথায় ব্রেসওয়েলের শিকার হয়ে প্যাভিলয়নে ফিরলে বিশ্বকাপের আগে ফের নিজের জাত চেনালেন ধবন। ৭৫ রানে অপরাজিত থেকে ম্যাচ শেষ করলেন ‘গব্বর’। বিরাটও খেললেন ৪৫ রানের ঝকঝকে ইনিংস। ১০ ওভারের মাথায় উইকেটের উপর অতিরিক্ত আলোর জন্য খেলা বন্ধ করে দেন দুই ফিল্ড আম্পায়ার। ডাকওয়ার্থ লুইস নিয়মে ম্যাচ এক ওভার কমিয়ে ৪৯ ওভারের করা হয়। টার্গেট রান থেকেও ২ রান কমিয়ে দেওয়া হয়। কোনও কিউয়ি বোলারই দাগ কাটতে পারেননি বিরাট-ধবনদের সামনে। শেষের দিকে লকি ফার্গুসনের বলে বিরাট আউট হলেও চার নম্বরে নামা অম্বাতি রায়াডু(১৩*)-কে নিয়ে ম্যাচ শেষ করেন শিখর ধবন।
ম্যাচের সেরা নির্বাচিত হয়েছেন মহম্মদ শামি। ভারতের পরের ম্যাচ ২৬ জানুয়ারি মাউন্ট মঙ্গনুই সংলগ্ন বে ওভালে। ম্যাচ সকাল সাড়ে সাতটা থেকে শুরু।
ভারত: রোহিত শর্মা, শিখর ধবন, বিরাট কোহলি, অম্বাতি রায়াডু, মহেন্দ্র সিংহ ধোনি, কেদার যাদব, বিজয় শঙ্কর, ভুবনেশ্বর কুমার, কুলদীপ যাদব, মহম্মদ শামি, যুজবেন্দ্র চহাল।
নিউজিল্যান্ড: মার্টিন গাপটিল, কলিন মুনরো, কেন উইলিয়ামসন, রস টেলর, টম লাথাম, হেনরি নিকোলস্, মিচেল স্যান্টনার, টিম সাউদি, ডাগ ব্রেসওয়েল, ট্রেন্ট বোল্ট, লকি

Previous articleদেশের নেতা-নেতাজি
Next articleখরচ দ্বিগুণ,আসল নোলেন গুড়ের পাটালি তৈরিতে অনিহা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here