দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ এনআরসি এবং নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (ক্যাব) নিয়ে পথে নামছে তৃণমূল। যার জেরে আগামী ১৬ তারিখ সোমবার গণ আন্দোলেনের ডাক দিয়ে বিরাট মিছিলের ডাক দিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপি ছাড়া সব রাজনৈতিক দল ও গণ সংগঠন সহ সাধারণ মানুষকে এই মিছিলে এদিন আহ্বান জানান মমতা।

সোমবার বেলা ১টায় আম্বেদকরের মূর্তির পাদদেশ থেকে মিছিল শুরু হবে, যা শেষ হবে জোড়াসাঁকোতে। মঙ্গলবার মিছিল শুরু হলে দক্ষিণ কলকাতার ৮বি বাসস্ট্যান্ড থেকে। বুধবার জেলায় জেলায় হবে মিছিল।

এক নজরে

  • এদিন দিঘায় চলতি শিল্প সম্মলনে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তৃণমূল নেত্রী বলেন, শুরু থেকেই ক্যাব , এনআরসি -র বিরোধীতা করছে তৃণমূল সরকার, আগামী দিনেও তা করবে।
  • এদিন ফের একবার কেন্দ্রকে হুঁশিয়ারি দিয়ে মমতা স্পষ্ট জানিয়েদেন, এই রাজ্যে এনআরসি করতে তিনি এবং তাঁর দল দেবেন না।
  • রাজ্যের মানুষকে মমতা বলেন, ভয়ের কোনও কারণ নেই, যেমন শান্তিতে আছেন তেমনই থাকবেন।

এর আগে ২০ ডিসেম্বর এনআরসি এবং নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (ক্যাব) নিয়ে তৃণমূল ভবনে বৈঠক ডেকেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন দিঘায় চলতি শিল্প সম্মলনে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তৃণমূল নেত্রী বলেন, শুরু থেকেই ক্যাব, এনআরসি-র বিরোধীতা করছে তৃণমূল সরকার, আগামী দিনেও তা করবে। এদিন ফের একবার কেন্দ্রকে হুঁশিয়ারি দিয়ে মমতা স্পষ্ট জানিয়েদেন, এই রাজ্যে এনআরসি করতে তিনি এবং তাঁর দল দেবেন না। রাজ্যের মানুষকে মমতা বলেন, ভয়ের কোনও কারণ নেই, যেমন শান্তিতে আছেন তেমনই থাকবেন।


এদিন মমতা বলেন, স্বাধীনতা আন্দোলন করে যে অধিকার পাওয়া গিয়েছে তা বজায় থাকবে। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, দেশরক্ষা করতে যদি আরেকটা স্বাধীনতা আন্দোলন করতে হয় তা তিনি করবেন। এরপরই তিনি বলেন, দেশের বর্তমান পরিস্থিতি আগামী ১৭ তারিখ দিল্লি সফর বাতিল করছেন। এই পরিস্থিতি মুখ্যমন্ত্রীর সাফ জবাব, তিনি মানুষের পাশে থাকতে চান, তাই দিল্লি যাবেন না।

মমতা এদিন বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে এপার বাংলার সম্পর্ক ভালো। তিনি একেবারেই মৌলবাদি নন। ক্যাবের জেরে এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে যে জাপানের প্রধানমন্ত্রীও নিজের সফর বালিত করেছেন। একইসঙ্গে এদিন উত্তর-পূর্ব ভারত তথা অসমের পরিস্থিতি নিয়ে ফের একবার উদ্বেগ প্রকাশ করেন মমতা।
এদিন সেই একই ভাবে বিজেপির দিকে আক্রমণ করে মমতা বলেন, বিজেপি কোটি কোটি টাকা খরচ করে এই সব করছে, যার কোনও মূল্য নেই। তৃণমূল নেত্রীর সাফ কথা তিনি জেলে যেতে রাজি, কিন্তু ক্যাব, এনআরসি মেনে দেশকে খন্ডিত করতে দেবেন না।

এদিন তিনি বলেন, মাথা ঠান্ডা করে গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে গণ-আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। নিপীরিত, বঞ্চিতদের হয়ে এগিয়ে যেতে হবে। মানুষে মানুষে কোনও ভেদাভেদ নেই মনে রাখুন। এরপরই মমতা সোমবার মিছিলের ডাক দেন।


পাশাপাশি এদিন আবারও, তফশিলি জাতি ও উপজাতি বিলে রাজ্যপালের স্বাক্ষর না করা নিয়ে ফের একবার রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়কে আক্রমণ করেন মমতা। রাজ্যাপাল জানতে চাইছেন, তফশিলি জাতি ও উপজাতি কমিশনর টাকা আসবে কোথা থেকে। মমতা সরাসরি বলেন, এটা সরকারের দায়িত্ব। এরপরই ফের ক্যাব প্রসঙ্গে মমতা বলেন, ক্যাপ পাশ হয়েছে সংসদে, কিন্তু তা বলবৎ করার দায়িত্ব রাজ্যের হাতে। বাংলার সরকার রাজ্যে ক্যাব বলবৎ করতে দেবে না, চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন মমতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here