দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ ২০২২ এর বিদায় ঘণ্টা বেজে গিয়েছে, আর মাত্র কটাদিন তারপরেই আসছে বড়দিন। আর তারপরেই নতুন বছর। স্বভাবতই চারিদিকে উৎসবের মেজাজ। বড়দিন উপলক্ষ্যে সেজে উঠছে পার্ক স্ট্রিট, বো ব্যারাক। দলে দলে মানুষ উৎসব মুখর হবেন। বছর শেষের আনন্দ চেটেপুটে উপভোগ করবেন সাধারণ মানুষ। এরপর নতুন বছরকে আহ্বান। আজ ২১ ডিসেম্বর খ্রীষ্টমাস ফেস্টিভালের সূচনা করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তবে এখন এটাই এখন প্রশ্ন বঙ্গবাসীর মনে জেগেছে! তা হল ৷ বড়দিনে কনকনে শীত কি তবে উধাও? গত কয়েকদিনে উত্তুরে হাওয়ায় বেশ শীতের আমেজ পড়েছিল শহরে। ভোরের দিকে হাল্কা কুয়াশা, বেলা বাড়লে নরম রোদ আর বিকেলের পর থেকেই একধাক্কায় নেমে যাচ্ছিল তাপমাত্রার পারদ। নভেম্বর না হোক, মাঝ ডিসেম্বর থেকে শীত শীত ভাবটা বেশ আনন্দের সঙ্গেই উপভোগ করছিল শহরবাসী। কিন্তু আবারও ছেদ পড়ল। আলিপুর হাওয়া অফিস জানিয়েছে, খামখেয়ালি আবহাওয়ায় ফের বাড়তে পারে তাপমাত্রার পারদ। আগামী শুক্রবার থেকেই কনকনে শীতের আমেজ উধাও হতে পারে। তার মানে বড়দিন উষ্ণতাতেই কাটবে।

হাওয়া অফিস জানিয়েছে, আগামী দিন দুয়েকের মধ্যে কলকাতা এবং পার্শ্ববর্তী এলাকার তাপমাত্রা স্বাভাবিকের তুলনায় ২ থেকে ৩ ডিগ্রি বাড়তে পারে । মঙ্গলবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৫.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিক তাপমাত্রার তুলনায় ১ ডিগ্রি বেশি। বুধবার এই তাপমাত্রা সামান্য কমতে দেখা গেছে। উত্তরবঙ্গের তিন জেলায় ঘন কুয়াশার দাপট রয়েছে। দক্ষিণবঙ্গে আগামী কয়েকদিন আকাশ পরিষ্কারই থাকবে। বৃষ্টির কোনও সম্ভাবনা নেই।

শুক্রবার থেকে বিপরীত ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হবে বঙ্গোপসাগরে। এর ফলে জলীয় বাষ্প ঢুকবে রাজ্যে। এর জেরে বাধা পাবে উত্তুরে হাওয়া। ফলে দিন ও রাতের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের ওপরেই থাকবে। শুক্রবার থেকে সোমবারের মধ্যে তিন থেকে চার ডিগ্রি তাপমাত্রা বাড়তে পারে বলে অনুমান আবহাওয়া দফতরের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here