দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ চলতি বাজেট অধিবেশন শেষ হলেই যে শান্তনুর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কথা বলবেন, মতুয়া ঠাকুরবাড়ি সূত্রে সেই খবরও জানা যাচ্ছে। শান্তনু ঘনিষ্ঠদের কেউ কেউ সোশ্যাল মিডিয়াতে ইতিমধ্যেই পোস্ট করেছেন সেই আসন্ন বৈঠকের কথা।

বাজেট অধিবেশন শেষ হলেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর (Amit Shah) সঙ্গে বৈঠকে বসছেন ‘বিক্ষুব্ধ’ শান্তনু ঠাকুর সূত্র মারফত এমনটাই জানা গিয়েছে। এর পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গে আবার সক্রিয় হচ্ছেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়ও।

মঙ্গলবার দিল্লিতে বিজেপির সর্বভারতীয় সদর দফতরে শান্তনু ঠাকুর এবং নিশীথ প্রামাণিকের সঙ্গে বৈঠক করেছেন কৈলাস। বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক কৈলাস বিজয়বর্গীয় কাগজে কলমে এই রাজ্যের বিজেপির প্রভারী পদে থাকলেও, বিধানসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর থেকে তিনি কার্যত নিষ্ক্রিয় ছিলেন বঙ্গ বিজেপিতে। সেই জায়গায় কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের তরফ থেকে শুধুমাত্র অমিত মালব্যই বাংলার কাজের তদারকি করছিলেন। কিন্তু গতকাল রাজ্যের দুই নেতার সঙ্গে কৈলাস বিজয়বর্গীয় বৈঠক করেন এবং তাঁর সেই বৈঠকের ছবি কৈলাস নিজেই টুইট করেন। ফলে, বঙ্গ বিজেপির অন্দরে তাঁর সক্রিয়তা আবার স্পষ্ট হচ্ছে বলেই মত রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের। সূত্রের খবর, দলের শীর্ষ নেতৃত্বের নির্দেশই এই সক্রিয়তা দেখা গিয়েছে কৈলাস বিজয়বর্গীর মধ্যে।

রাজ্য বিজেপির অন্দরে যে তুমুল টানাপড়েন সম্প্রতি চলছে, তা কী ভাবে নিয়ন্ত্রণে আসবে তা নিয়ে কার্যত নাজেহাল অবস্থা হয়ে গিয়েছিল রাজ্য নেতৃত্বের। শোকজ় এবং তারপর সাময়িক বরখাস্তের পরেও পরিস্থিতিতে কোনও বদল হয়নি। এই পরিস্থিতিতে আগামী দিনে বঙ্গ বিজেপির অন্দরে এক বিক্ষোভ, কোন দিকে মোড় নেবে তা অনেকেই বুঝতে পারছিলেন না। ঠিক সেই সময়েই কৈলাস বিজয়বর্গীয়কে আবার সক্রিয় করে তোলা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। সামনেই পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন রয়েছে। এদিকে দিল্লিতে বাজেট অধিবেশন চলছে। পেগাসাস নিয়ে বিরোধীরা সংসদ উত্তাল করতে চাইছে। কিন্তু তার মাঝেও বাংলার পরিস্থিতি নিয়ে বিজেপির তিন সর্বোচ্চ নেতা খোঁজখবর রাখছেন বলে পদ্ম শিবির সূত্রে খবর।

এদিকে দলীয় সূত্রে খবর, বঙ্গ বিজেপিতে যুযুধান দুই পক্ষকেই আপাতত সংযত থাকতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে কৈলাসের মতো সিনিয়র নেতাকেই এই মুহূর্তে দরকার বলে নেতৃত্ব মনে করছেন কেন্দ্রীয় নেতারা। আর সেই কারণেই বঙ্গ রাজনীতিতে কৈলাস আবার সক্রিয় বলে খবর। চলতি বাজেট অধিবেশন শেষ হলেই যে শান্তনুর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কথা বলবেন, মতুয়া ঠাকুরবাড়ি সূত্রে সেই খবরও জানা যাচ্ছে। শান্তনু ঘনিষ্ঠদের কেউ কেউ সোশ্যাল মিডিয়াতে ইতিমধ্যেই পোস্ট করেছেন সেই আসন্ন বৈঠকের কথা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here