সৃজিতা শীল কলকাতা

রবিবার রাতে আছড়ে পড়েছে ঘূর্ণিঝড় রেমাল। যার প্রভাবে সপ্তাহের প্রথম দিনে সম্পূর্ণ বিপর্যস্ত কলকাতা। ক্যামাকস্ট্রিট, বালিগঞ্জ, পার্ক সার্কাস সহ জলমগ্ন শহরের একাধিক এলাকা।নানা জায়গায় রাস্তায় ছিঁড়ে পড়ে রয়েছে বিদ্যুতের তার।

হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুযায়ী, রবিবার মধ্যরাত থেকে যে দুর্যোগ শুরু হয়েছে, তা সোমবারও শেষ হচ্ছে না। আজ বেলা সাড়ে ১২টার পর থেকে ঘূর্ণিঝড় বদলে যাবে গভীর নিম্নচাপে। তবে গোটা রাজ্যে ঘূর্ণিঝড় এবং পরবর্তী নিম্নচাপের প্রভাব থাকবে। সোমবার সকাল থেকেও কলকাতায় বৃষ্টি হয়েই চলেছে। শহরের একাধিক জায়গায় গাছ ভেঙে পড়ায় অবরুদ্ধ বিভিন্ন রাস্তা। কলকাতা পুলিশ ও কলকাতা পুরসভা গাছ সরানোর কাজ চালাচ্ছে। তবে বৃষ্টির কারণে ভেঙে পড়া গাছ সরাতে বেগ পেতে হচ্ছে।

রেললাইনে জল জমে সকাল থেকে শিয়ালদহ দক্ষিণ শাখায় ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

অন্যদিকে, ঘূর্ণিঝড় রেমালের জেরে রাতভর বৃষ্টিতে সপ্তাহের প্রথম দিনে বিপর্যস্ত কলকাতার মেট্রো পরিষেবা। পার্ক স্ট্রিট এবং এসপ্ল্যানেড মেট্রো স্টেশনের মাঝের ট্র্যাকে জল ঢুকে পড়েছে। স্টেশনের একাংশ এবং পুরো ট্র্যাকটাই জলের তলায়। ফলে সোমবার সাতসকাল থেকেই ব্যাহত মেট্রো পরিষেবা।

জানা গিয়েছে, জল জমার কারণে গিরিশ পার্ক থেকে টালিগঞ্জ পর্যন্ত মেট্রো পরিষেবা পুরোপুরি বন্ধ। আপ, ডাউন কোনও দিকেই মেট্রো চলছে না ওই অংশে। সকাল ৭টা ৫১ মিনিট থেকে মেট্রো পরিষেবা ব্যাহত হয়েছে বলে খবর। সপ্তাহের প্রথম দিনে সকালে মেট্রো পরিষেবা ব্যাহত হওয়ায় ভোগান্তির শিকার নিত্যযাত্রীরা।

মেট্রো সূত্রে খবর, পার্ক স্ট্রিট এবং এসপ্ল্যানেডের মধ্যেকার ট্র্যাকে জল জমে থাকার কারণে ট্রেন চলাচলে সমস্যা দেখা দিয়েছে। তবে টালিগঞ্জ থেকে কবি সুভাষ এবং গিরিশ পার্ক থেকে দক্ষিণেশ্বর পর্যন্ত মেট্রো চলাচল করছে। দ্রুত পরিষেবা স্বাভাবিক করার কাজ চলছে। ট্র্যাক থেকে জল বার করার কাজ করছেন মেট্রো কর্মীরা। ঘটনাস্থলে রয়েছেন মেট্রোর উচ্চপদস্থ আধিকারিকেরা। মেট্রোর মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক কৌশিক মিত্র বলেন, “আপাতত কবি সুভাষ থেকে ময়দান এবং দক্ষিণেশ্বর থেকে গিরিশ পার্ক পর্যন্ত মেট্রো চলছে। কিছু ক্ষণের মধ্যেই সম্পূর্ণ পরিষেবা চালু করা যাবে বলে আমরা আশা রাখছি।”

মেট্রো সূত্রের খবর, পার্ক স্ট্রিট থেকে এসপ্ল্যানেড মেট্রো স্টেশনের মাঝে জল জমে গিয়েছে। তার ফলে বন্ধ অংশিক মেট্রো পরিষেবা। কখন সবকিছু স্বাভাবিক হবে সেবিষয়ে মেট্রোর তরফে কিছু জানানো হয়নি। এর আগে রবিবার বিকেল সাড়ে পাঁচটা থেকে মেট্রো পরিষেবা আংশিক বন্ধ হয়ে যায়। টালিগঞ্জ অর্থাৎ মহানায়ক উত্তম কুমার স্টেশনের পর থেকে কবি সুভাষ পর্যন্ত মেট্রো পরিষেবা প্রায় ঘণ্টাদুয়েক বন্ধ ছিল। সাড়ে সাতটার পর পরিষেবা স্বাভাবিক হয়।

আলিপুর আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস, রেমালের প্রভাবে সোমবার উত্তর এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনা, কলকাতা, পূর্ব মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলিতে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। ফলে বৃষ্টি না কমলে দুর্যোগ সামাল দিতে সমস্যা তৈরি হচ্ছে।

‘রেমাল’ তাণ্ডবের পর উদ্ধারকাজে সক্রিয় রাজভবনের অ্যাকশন ফোর্স, তদারকিতে খোদ রাজ্যপাল

‘রেমাল’-এর পূর্বাভাস পাওয়ার পরই কন্ট্রোলরুম খুলেছিল রাজভবন। কন্ট্রোলরুমের নম্বর ০৩৩ ২২০০ ১৬৪১। তাছাড়া আট সদস্যের ইমার্জেন্সি মেডিক্যাল টাক্স ফোর্স গঠন করা হয়েছিল। 

রাজভবনের টিম ছাড়াও কলকাতা পুলিশ ও কলকাতা পুরসভা গাছ সরানোর কাজ চালাচ্ছে। তবে বৃষ্টির কারণে ভেঙে পড়া গাছ সরাতে বেগ পেতে হচ্ছে। আলিপুর আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস, রেমালের প্রভাবে সোমবার উত্তর এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনা,  কলকাতা, পূর্ব মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলিতে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। ফলে বৃষ্টি না কমলে দুর্যোগ সামাল দিতে সমস্যা তৈরি হচ্ছে। 

মেয়র ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, কলকাতায় ছোট বড় মিলিয়ে মোট ৫৮টি গাছ ভেঙে পড়েছে। সকাল থেকে গাছ সরিয়ে রাস্তা ফাঁকা করার কাজ চলছে। একে তো ভরা কোটালের দাপট আবার তার উপর অঝোর বৃষ্টি, সবমিলিয়ে জলযন্ত্রণা দূর হতে কিছুটা সময় লাগবে বলেই মনে করছে পুর কর্তৃপক্ষ।

প্রায় ২৪ ঘণ্টা পর চালু হল কলকাতা বিমানবন্দরের বিমান পরিষেবা। সকাল ৮টা ৫৯ মিনিটে চালু হয়ে যায় বিমান ওঠানামার প্রক্রিয়া। প্রথম বিমান উড়ল পোর্ট ব্লেয়ারের উদ্দেশে ।

সোমবার কলকাতা বিমানবন্দর থেকে প্রথম উড়ান ছাড়ে সকাল ৮টা ৫৯ মিনিট নাগাদ। কলকাতা থেকে পোর্ট ব্লেয়ারের উদ্দেশে ইন্ডিগোর বিমান ছাড়ে। আর কলকাতায় নামা প্রথম বিমানটি আসে গুয়াহাটি থেকে সকাল ৯টা ৫০ মিনিট নাগাদ।

কলকাতা বিমানবন্দরের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, পরিষেবা চালু হলেও তা পুরোপুরি স্বাভাবিক হতে কিছুটা সময় লাগবে। কারণ, ঘূর্ণিঝড় শক্তি হারালেও দুর্যোগ এখনও কাটেনি। সোমবার সকাল থেকেই কলকাতায় বৃষ্টি হচ্ছে। কোথাও মুষলধারে, কোথাও ঝিরিঝিরি। আবহাওয়াও খুব একটা ভাল নয়।

রেমালের কারণে পরিষেবা ২১ ঘণ্টা বন্ধ থাকবে, তা আগেই জানিয়েছিলেন কলকাতা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। রবিবার এখান থেকে শেষ বিমান ছাড়ে দুপুর ১২টা ১৬ মিনিট নাগাদ। তার পর থেকে গোটা দিন পরিষেবা বন্ধ থাকার পর সোমবার সকালে আবার চালু হয়।

তবে এখন পর্যন্ত যা জানা গিয়েছে, সেই অনুযায়ী প্রায় ৪০০ উড়ান বাতিল করা হয়েছে। ফলে পরিষেবা স্বাভাবিক হতে সময় লাগবে বলেই বিমানবন্দর সূত্রে খবর।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, সোমবার রাজ্যের দুই জেলায় লাল সতর্কতাও জারি রয়েছে। মুর্শিদাবাদ এবং নদিয়ায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে। ঝড়ের গতি থাকতে পারে ঘণ্টায় ৬০ থেকে ৭০ কিলোমিটার। সাময়িক ভাবে দমকা হাওয়ার বেগ পৌঁছে যেতে পারে ৮০ কিলোমিটার পর্যন্তও। এই দুই জেলায় সোমবার ৭ থেকে ২০ সেন্টিমিটার বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here