দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে ঘিরে রাজ্য-কেন্দ্র সংঘাতের আবহে বুধবার দুপুরে রাজভবনে যাচ্ছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। আজ দুপুর ৩ টেয় রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে বৈঠক করবেন শুভেন্দু। রাজ্যের কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে রাজ্যপালের সঙ্গে তিনি দেখা করবেন বলে নিজেই টুইট করে জানিয়েছেন বিজেপি বিধায়ক। রাজ্য-কেন্দ্র টানাপোড়েনের আবহে রাজ্যপালের সঙ্গে শুভেন্দুর সাক্ষাৎ রাজনৈতিক দিক থেকে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহলের একাংশ।

উল্লেখ্য, ইয়াস নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যোগ না দেওয়া ঘিরে রাজনৈতিক তরজা তুঙ্গে। এ নিয়ে বারংবার সোচ্চার হয়েছেন শুভেন্দু। অন্যদিকে, মোদীর বৈঠক বয়কট করার পরিকল্পনা মমতার আগেই ছিল বলে টুইট করে এই পর্বে বিতর্ক বাড়িয়েছেন ধনখড়। এই প্রেক্ষাপটে রাজ্যপালের সঙ্গে শুভেন্দুর সাক্ষাৎপর্ব ঘিরে জোর চর্চা রাজনৈতিক মহলে।

এদিকে, সদ্য প্রাক্তন মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকে যোগ না দেওয়ায় তাঁকে শোকজ নোটিশ পাঠিয়েছে কেন্দ্র। এ নিয়েও তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি। এই ইস্যুতে মঙ্গলবার একের পর এক টুইট করে শুভেন্দু লিখেছেন, ‘নিজের অহং বোধের জন্য ও মুখ্যসচিবকে বাঁচাতে মুখ্যমন্ত্রীর দফতর ও ভারতের সংবিধানকে অসম্মান করেছেন দিদি। প্রাক্তন মুখ্যসচিব কী সিক্রেট জানেন, যার জন্য তাঁকে বাঁচাতে এত মরিয়া হয়ে উঠেছেন মুখ্যমন্ত্রী? সার্ভিস রুল লঙ্ঘন, শৃঙ্খলাভঙ্গের জন্য প্রাক্তন মুখ্যসচিবের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ করার দাবি জানাচ্ছি’। সেই সঙ্গে শুভেন্দু আরও লিখেছেন, যেখানে দুর্যোগ, অতিমারীর আবহ রাজ্যে, সেখানে অন্যকে সাহায্য করছেন না, শুধুমাত্র ঘৃণ্য রাজনৈতিক খেলার জন্য।

অন্যদিকে, আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে মুখ্যমন্ত্রীর মুখ্য উপদেষ্টা পদে নিয়োগ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এজন্য তাঁর বেতন আড়াই লাখ টাকা ধার্য করা হয়েছে। এ নিয়ে শুভেন্দু বলেছেন, ‘করদাতাদের টাকা লুঠ করা তৃণমূলের শখ। প্রাক্তন মুখ্যসচিব এখন মুখ্যমন্ত্রীর মুখ্য উপদেষ্টা,যিনি মাসে আড়াই লাখ টাকা বেতন পাবেন। করদাতাদের কষ্ট করে উপার্জন করা টাকা ব্যয় করার আরও উপায় আছে’।কেন্দ্র-রাজ্য সংঘাতের আবহে আজ রাজভবনে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে দেখা করবেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here