দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ তাঁদের দলের নেতা কর্মী সমর্থদের ওপর বারেবারেই হামলা চালাচ্ছে তৃণমূল এবং পরে তাঁদের বিরুদ্ধেই মিথ্যে মামলা করা হচ্ছে, এমন অভিযোগ প্রায়শই শোনা যায় বিজেপি নেতৃত্বের গলায়। সেইসব ঘটনার প্রেক্ষিতে শনিবার ফের একবার কড়া হুঁশিয়ারি দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ । দিলীপের হুঁশিয়ারী, যেদিন সত্যি সত্যি মারতে আরম্ভ করবো সেদিন ব্যান্ডেজ বাঁধার জায়গা থাকবে না। এমনকি হাসপাতালে বেডও পাবে না। বাইরে বেড খাটাতে হবে। দিলীপের আরও কটাক্ষ, রাজ্যে পিসি ভাইপোর রাজত্ব চলবে না। আমরা সাধারণ মানুষের হাতে সরাসরি সরকারি পরিষেবা পৌঁছে দিতে চাই। কিন্তু তৃণমূলের দালাল নেতা কর্মীরা তা করতে দিচ্ছে না। 

প্রসঙ্গত, দীর্ঘদিন ধরেই তৃণমূলের খাসতালুক হিসেবে পরিচিত ভাঙড়। তবে বিগত কয়েক মাস ধরে ভাঙড়ে লাগাতার নানা কর্মসূচি পালন করছে বিজেপি। এর আগেও কর্মীদের মনোবল চাঙ্গা করতে একাধিকবার ভাঙড়ে পা রেখেছেন দিলীপ ঘোষ। এদিন এক চায়ে পে চর্চা তে যোগ দেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। চা চক্রে উপস্থিত ছিলেন দলের স্থানীয় নেতা কর্মীরাও। ছিলেন এলাকার সাধারণ মানুষও। বিভিন্ন দিক থেকে রাজ্য সরকার তথা শাসক দলের সমালোচনায় সরব হন দিলীপ। 

অন্যদিকে এদিনই নিউটাউনে দিলীপ বলেন, “সূচি অনুযায়ী এপ্রিলে হবে নির্বাচন, মে তে গঠিত হবে নতুন সরকার। নির্বাচন আজকে হলেও আমরা তৈরি। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর দল প্রস্তুত নয়, তাই তারা পুরসভা ও পুরনিগম ভোট আটকে রেখেছে।” দিলীপের চ্যালেঞ্জ, “সমস্ত পুরসভার নির্বাচন হোক, দেখা যাক কার কত ক্ষমতা।” তিনি আরও বলেন, “বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি শেষ, আমাদের কেন্দ্রীয় নেতারা আসছেন, সংগঠন তৈরি, আন্দোলন জারি আছে।”

অন্যদিকে তৃণমূল নিজেদের ঘর বাঁচাতে ব্যস্ত বলেই এদিন কটাক্ষ করেন দিলীপ। পাশাপাশি এদিন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেনেরও কড়া সমালোচনা করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। অমর্ত্যর উদ্দেশ্যে দিলীপের কটাক্ষ,”যদি তিনি একটি নির্দিষ্ট দল বা বিচারধারার হয়ে কথা বলেন তাহলে আমরা ভাববো তবে কি ভুল মানুষকে দেওয়া হল পুরস্কার!” 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here