দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ বুলবুল বিধ্বস্ত এলাকায় যাতে কোনও অশান্তি না ছড়ায়, যে ব্যাপারে প্রশাসনকে সতর্ক করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

রবিবারই রাজ্য সরকারের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল, উত্তরবঙ্গ সফর বাতিল করে বুলবুল বিধ্বস্ত দক্ষিণ চব্বিশ পরগনায় যাবেন মুখ্যমন্ত্রী। সোমবার সকালে ডুমুরজলা স্টেডিয়াম থেকে হেলিকপ্টারে নামখানা, বকখালি পরিদর্শন করার পর কাকদ্বীপে প্রশাসনিক বৈঠক করেন মমতা। আর সেখানেই প্রশাসনিক কর্তা থেকে জনপ্রতিনিধি—সকলের উদ্দেশে মুখ্যমন্ত্রী পইপই করে বললেন, “দেখবেন কোনও অশান্তি যেন না হয়!”

তাঁর কথায়, “এলাকায় শান্তি রাখুন। কিছু সুযোগসন্ধানী আছে। এসবের সুযোগ নিয়ে অনেক কিছু করতে পারে। বুদ্ধি খরছ করে সবটা সামলাবেন।” মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, এই সময়ে দুর্যোগ কবলিত মানুষ কিছু না পেলে অনেক সময়ে ক্ষুব্ধ হন। সেই ক্ষোভ যে অসঙ্গত নয় তাও বলেন তিনি। একইসঙ্গে বলেন, এটাকে কেউ যেন অন্য ভাবে ব্যবহার না করতে পারে। এটা দেখতে হবে।

অনেকের মতে, মুখ্যমন্ত্রী হয়ত আশঙ্কা করছেন, ত্রাণ-সামগ্রী না পেলে ক্ষুব্ধ মানুষকে যদি বিরোধী রাজনৈতিক শক্তি উস্কে দেয়, তাহলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে। সেটা যেন না হয়, সেটাই এদিন একাধিকবার বলেন মমতা।

ধরে ধরে প্রশাসনিক কর্তাদের বুঝিয়ে দেন কী কী করতে হবে। ফসল বিমা যাতে ১০০ শতাংশ করা যায়, তা নিশ্চিত করার নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন তিনি বলেন, “পাকা ধান ও বরজের বিরাট ক্ষতি হয়েছে। দরকার হলে স্পেশাল ক্যাম্প করে ফসল বিমার কাজ দ্রুত শেষ করুন।” মুখ্যমন্ত্রীর আরও নির্দেশ, “যুদ্ধকালীন তৎপরতায় পুকুর পরিষ্কারের কাজ করতে হবে। মনে রাখবেন খাবার জলটা আগে দরকার।”

১০০দিনের কাজে আরও বেশি লোক নিয়োগের কথা বলেছেন তিনি। ত্রাণ বিতরণের ব্যাপারে মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, শুকনো খাবার ও বেবি ফুড বেশি করে দিন। বেবি ফুড যেন মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়া না হয় সে ব্যাপারেও সতর্ক করে দিয়েছেন মমতা। বলেছেন, “দেখেশুনে দেবেন। এক্সপাইরি ডেট চলে যাওয়া বেবি ফুড দেবেন না। স্টক থেকে বার করে দিয়ে দিলাম, আর কিছু দেখলাম না ওটা করলে হবে না।” জনপ্রতিনিধিদের উদ্দেশে মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ, টাস্ক ফোর্স করে দুর্গত এলাকার পুনর্গঠনের কাজে নামুন।

বাংলায় যে জেলাগুলিতে বুলবুল দানবীয় ছাপ ফেলে গিয়েছে, তার মধ্যে অন্যতম দুই চব্বিশ পরগনা। মুখ্যমন্ত্রী এদিন জানিয়েছেন, তিনি আগামী পরশুদিন অর্থাৎ বুধবার উত্তর চব্বিশ পরগনা সফরে যাবেন। বসিরহাটের বুলবুল বিধ্বস্ত এলাকা ঘুরে দেখবেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here