দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ অনলাইনে পড়াশোনার সুবিধার জন্য দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রছাত্রীদের  দশ হাজার টাকা করে দেবে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। মঙ্গলবার রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকের পরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে একথা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । সমস্ত সরকারি, সরকার পোষিত এবং সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দ্বাদশ শ্রেণির প্রত্যেক পড়ুয়া সরকারি এই সহায়তা অর্থ পাবে বলে জানিয়েছেন তিনি। এর ফলে উপকৃত হবে স্কুল ও মাদ্রাসা মিলিয়ে ৯ লক্ষ ৫০ হাজার ছাত্রছাত্রী।

করোনা আবহে এখন অনলাইনে ক্লাস করতে হচ্ছে পড়ুয়াদের। এখন যে সমস্ত ছাত্রছাত্রী দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়ে ২০২১ সালে তারা উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দেবে। এই সমস্ত ছাত্রছাত্রীদের অনলাইন ক্লাস করতে যাতে সুবিধা হয় সে জন্য তাদের ট্যাব দেওয়া হবে বলে সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন। এ দিন সাংবাদিক বৈঠকে দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়াদের ট্যাব দেওয়ার পরিকল্পনা বাতিলের কথা ঘোষণা করেন মমতা। পরিবর্তে দ্বাদশ শ্রেণির প্রত্যেক পড়ুয়াকে রাজ্য সরকারের তরফে ১০ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে বলে তিনি জানান। এই টাকা পাওয়ার জন্য ছাত্রছাত্রীদের কোথাও যাওয়ার প্রয়োজন নেই। আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে প্রত্যেক পড়ুয়ার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে সরাসরি সরকার টাকা জমা দিয়ে দেবে।

কী কারণে পড়ুয়াদের ট্যাব দেওয়ার পরিকল্পনা থেকে সরকার পিছু হটল তাও এদিন বিশদে ব্যাখ্যা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি জানিয়েছেন, পূর্ব ঘোষণা অনুসারে সাড়ে ৯ লক্ষ ট্যাবের বরাত দেওয়ার জন্য টেন্ডার প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছিল নবান্ন। কিন্তু এই মুহূর্তে ১ থেকে দেড় লক্ষের বেশি ট্যাব বাজারে উপলব্ধ নয় বলে বিভিন্ন সংস্থা রাজ্যকে জানিয়েছে। অন্যদিকে, ভারত সরকারের নিষেধাজ্ঞা থাকায় চিন থেকে ট্যাব আমদানির পথে যায়নি রাজ্য সরকার। এই পরিস্থিতিতে শীর্ষ আধিকারিক-সহ সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে রাজ্য সরকার দ্বাদশ শ্রেণির প্রত্যেক পড়ুয়ার অ্যাকাউন্টে ১০ হাজার টাকা করে জমা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.