দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ দেশজুড়ে লকডাউনের মধ্যে বিভিন্ন জায়গায় ত্রাতার ভূমিকায় দেখা যাচ্ছে পুলিশকে। কখনও ভবঘুরেদের খাবারের ব্যবস্থা করছেন কখনও সমবায়ের অনুরোধে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খোঁজ নিয়ে শিশুদের মধ্যে দুধ বিলি করছেন। এবার দুর্বারের কর্মীদের পাশে দাঁড়ালেন তাঁরা। আসানসোলের কুলটি থানার লছিপুর চবকা এলাকায় একটি যৌনপল্লিতে গিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে অন্তত একশো জন মহিলার হাতে তাঁরা তুলে দেন চাল, ডাল ও অন্য খাদ্যসামগ্রী।

লক ডাউনের জেরে বর্তমানে বন্ধ রয়েছে পরিবহণ। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে বলা হয়েছে। চালু রয়েছে শুধু জরুরি পরিষেবা ও মুদিখানা, বাজার ও রেশনের মতো অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের দোকান। এই পরিস্থিতিতে যৌনপল্লিতে যাঁরা থাকেন তাঁরা অত্যন্ত সমস্যায় পড়েন। ভীষণ কষ্টে তাঁদের দিন কাটছিল। এই পরিস্থিতিতে ত্রাতার ভূমিকায় দেখা গেল কুলটি থানার নিয়ামতপুর ফাঁড়ির পুলিশকে৷

দুর্বারের এক কর্মী বলেন, “মেয়েদের অনেক অসুবিধা হচ্ছিল। তাঁরা তাঁদের সমস্যার কথা আমাদের বলেছিলেন। আমরা নিয়ামতপুর ফাঁড়ির পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে সেই সব সমস্যার কথা জানাই। এরপরে পুলিশের পক্ষ থেকে আজ (বৃহস্পতিবার) মেয়েদের হাতে চাল, ডাল প্রভৃতি তুলে দেওয়া হয়।” এক যৌনকর্মী বলেন, “আমাদের হাতে টাকাপয়সা ছিল না। আমরা দুর্বারে গিয়ে সেকথা জানাই। দুর্বার থেকে ফাঁড়ির পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে। আজ চাল ও ডাল দেওয়া হয়েছে।”
পুলিশকে ত্রাতার ভূমিকায় পেয়ে স্বস্তিতে যৌনপল্লির বাসিন্দারা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here