দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ দৃশ্যটা ভাবুন তো একবার! যতীন দাস পার্ক মেট্রো স্টেশন থেকে হেঁটে হেঁটে বেরিয়ে আসছেন সানি লিওনি। কাঁধে ব্যাগ। তাতে রাখা ম্যাকবেথের নোটস! তারপর রাস্তা পেরিয়ে ফুটপাথ ধরে এগিয়ে যাচ্ছেন আশুতোষ কলেজের দিকে। ক্লাস শেষ করে কলেজ থেকে বেরিয়ে বন্ধুদের সঙ্গে হইহই করে চাউমিন খাচ্ছেন সাঙ্গুভ্যালিতে! কিংবা হরিশ পার্কে ফুচকা! কেমন হবে?

সম্ভাবনার কথা নিজেই উস্কে দিয়েছেন এই ভারতীয় বংশোদ্ভূত মডেল-অভিনেত্রী। লিখেছেন, “পরের সেমেস্টারে তোমাদের সঙ্গে কলেজে দেখা হবে। আশা করি তোমরা সবাই আমার ক্লাসে থাকবে!”

গতকালই আশুতোষ কলেজের প্রথম লিস্ট বেরিয়েছে। আর তাতে দেখা গিয়েছিল ইংরাজি অনার্সের এক নম্বরে নাম উঠেছে সানি লিওনির! শুধু তাই নয়। সমস্ত বিষয়েই তিনি ১০০ করে পেয়েছেন বলে উল্লেখ করা ছিল লিস্টে। এই নাম দেখেই শোরগোল পড়ে যায় ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে। তারপর পদক্ষেপ করে কলেজ কর্তৃপক্ষ! নাম সরিয়ে নেওয়া হয় সানি লিওনির।

এই খবর দেখেই শুক্রবার টুইট করলেন একদা পর্ন স্টার। মস্করা করেই লিখলেন কলেজে দেখা হওয়ার কথা।

কলেজ কর্তৃপক্ষের ব্যাখ্যা, কেউ বদমায়েশি করে এই নামে ফর্ম ফিলআপ করেছে। গত বছর থেকেই রাজ্যে কলেজে ভর্তির প্রক্রিয়া অনলাইনে হচ্ছে। এবছর করোনা আবহে তা আরও কড়াকড়ি। রাজ্য সরকার জানিয়েছে, একেবারে ক্লাস শুরু হলে কলেজে যাবেন ছাত্রছাত্রীরা। অনেকের মতে, ভুয়ো ফর্ম ফিলআপের কারণেই সানি লিওনির নাম উঠে গিয়েছে ইংরাজি অনার্সের মেধা তালিকায়। টেকনিক্যাল ত্রুটির জন্যই মার্কশিট ও ফর্ম ঠিক মতো দেখা হয়নি বলে জানিয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। শোরগোল শুরু হতেই অবশ্য লিস্ট থেকে নাম সরিয়ে নেয় আশুতোষ কর্তৃপক্ষ।

এমনিতে বহু বিখ্যাত ব্যক্তিত্বরা আশুতোষ কলেজের প্রাক্তনী। তাঁদের মধ্যে সেলুলয়েডের লোকজনও কম নেই। যাদবপুরের তৃণমূল সাংসদ তথা অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তীও আশুতোষ কলেজে পড়তেন। আশুতোষের ছাত্রী থাকার সময়েই অভিনয় জগতে পা রাখেন মিমি। ‘গানের ওপারে’ মেগা সিরিয়ালে তাঁর অভিষেক হয়েছিল ছাত্রাবস্থায়।

সানি লিওনির তালিকায় নাম দেখে অনেকেই প্রথমে হতবাক হয়েছিলেন। পরে বিষয়টা বুঝতে পেরে হাসাহাসি শুরু হয়ে যায় ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে। এদিনের টুইটে সানিও বুঝিয়ে দিয়েছেন, তিনিও যারপরনাই মজা পেয়েছেন বিষয়টাতে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here