কলকতায় বুলবুল,থাকবে ১২ ঘণ্টা, বিপুল ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা,কলকাতা-সহ সাত জেলায় প্রাথমিক স্কুলে ছুটি ঘোষণা রাজ্যের

0
1146

দেশের সময় ওয়েবডেস্কঃ এগিয়ে আসছে ঘূর্ণঝড় বুলবুল। শনিবারই আছড়ে পড়তে পারে রাজ্যে। দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় আশঙ্কা বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের সাত জেলায় শনিবার প্রাথমিক স্কুলে ছুটি ঘোষণা করল রাজ্য সরকার। দুই ২৪ পরগনা, দুই মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, হাওড়া ও কলকাতায় শনিবার সব প্রাথমিক স্কুল ছুটি থাকবে। প্রাথমিক শিক্ষা দফতর এই মর্মে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। ইতিমধ্যেই জেলায় জেলায় এই নির্দেশ পাঠিয়েও দিয়েছে দফতর।

বড় ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা সঙ্গেই নিয়েই আসছে ঘূর্ণঝড় বুলবুল। আগে আবাহওয়া দফতর জানিয়েছিল রবিবার কলকাতা তথা দক্ষিণবঙ্গে হতে পারে ঝড়-বৃষ্টি। কিন্তু শেষ পাওয়া পূর্বাভাস বলছে শনিবার সকালেই কলকাতায় আঘাত হানবে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল।

শুক্রবার আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, শনিবার সকাল ৮টা ১৭ মিনিটে কলকাতায় আসবে বুলবুল। থাকবে রাত
৮টা ৪২ মিনিট পর্যন্ত। এর প্রভাব পড়বে প্রায় গোটা দক্ষিণবঙ্গেই। কলকাতা ছেড়ে বাংলাদেশে যাবে রাত ৯টা ৫৬ মিনিটে। দীর্ঘ প্রায় ১২ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে রাজ্যে থাকবে। কলকাতায় বুলবুলের সেন্টার হবে ১২টা ৫৬ মিনিটে।

আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, সুন্দরবন এলাকার সাগরদ্বীত ও বাংলাদেশের খেপুপাড়া এলাকায় ঘুর্ণঝড় আছড়ে পড়বে। এর জন্য
শুক্রবার থেকেই ঝোড়ো হাওয়া চলবে দক্ষিণ বঙ্গে। ঝড়ের গতিবেগ হতে পারে ঘণ্টায় ১৩৫ কিলোমিটার পর্যন্ত। ভারী ও অতি ভারী বৃষ্টি হবে দুই ২৪ পরগনা, দুই মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলি, নদিয়া ও কলকাতায়। তবে কলকাতায় ঘূর্ণিঝড় হবে না। ভারী বৃষ্টির সঙ্গে বইতে পারে ৬০ কিলোমিটার পর্যন্ত গতিতে ঝোড়ো হাওয়া।

প্রথম থেকেই বুলবুলের গতিপথ নিয়ে বেশ খানিকটা ধন্দে রয়েছেন আবহাওয়াবিদরা। হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস, শুক্রবার বিকেল থেকেই রাজ্যে ঝোড়ো হাওয়া বইতে পারে। হাওয়ার গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ৪০ থেকে ৬০ কিলোমিটার। আগামিকাল সকালে দিক পরিবর্তন করে ঘূর্ণিঝড় কিছুটা শক্তি ক্ষয় করে ৯০ কিলোমিটার বেগে আছড়ে পড়তে পারে উপকূলে।

পশ্চিমবঙ্গের সাগরদ্বীপ থেকে বাংলাদেশের খেপুপাড়ার মাঝে স্থলভাগের প্রবেশ করবে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। আজই শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় থেকে অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে বুলবুল।

শুক্রবার রাত থেকে বৃষ্টি শুরু হবে দুই ২৪ পরগনা এবং পূর্ব মেদিনীপুরে। শনিবার ও রবিবার ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলিতে।

দিঘা-সহ উপকূলের সমস্ত এলাকাগুলিতেই সকাল থেকে মেঘলা আকাশ। ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট, সিভিল ডিফেন্স এর লোকজন দিঘা সহ উপকূলে সতর্কতামূলক টহল দিচ্ছে। বৃহস্পতিবার বিকেল থেকেই মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যাওয়ায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে প্রশাসন। এই মহুর্তে পর্যটকদের জন্য ফিরে যাওয়ার কোন সতর্ক বার্তা নেই। আবহাওয়া এখনও পর্যন্ত স্বাভাবিক রয়েছে। কোনও গুজব যাতে না ছড়ায় তারজন্য মাইকে প্রচার চলছে দিঘা, শঙ্করপুর, মন্দারমণিতে।

আন্দামান সাগর লাগোয়া পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে ঘনীভূত হওয়া নিম্নচাপ ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ের চেহারা নিচ্ছে। বসিরহাট, সন্দেশখালি, হিঙ্গলগঞ্জে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিচ্ছে প্রশাসন। দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার উপকূলবর্তী এলাকাতেও জারি হয়েছে সতর্কতা।

Previous articleবাংলার ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল,আজ থেকেই বৃষ্টির সম্ভাবনা
Next articleবিবেকানন্দ–রামকৃষ্ণের বাংলাই এখনও গোটা দেশে বহুত্বের কথা বলে- কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবের সূচনায় বলেন- মহেশ ভাট

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here