দেশের সময় ওয়েবডেস্ক: আরজিকর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে রহস্যমৃত্যু এক পোস্টগ্র্যাজুয়েট ট্রেনি চিকিৎসকের। পুলিশ জানিয়েছে, হাসপাতালের ক্যাজুয়ালটি ব্লকের টপ ফ্লোর থেকে নীচে পড়ে মারা গেছেন তরুণী চিকিৎসক। আত্মহত্যা করেছেন নাকি কোনও রহস্য আছে, তা নিয়ে এখনও ধোঁয়াশায় তদন্তকারী অফিসাররা। ওপর থেকে পড়ার পরে ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি। প্রাথমিক সন্দেহে অনুমান, আত্মহত্যা করে থাকতে পারেন পৌলোমী।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত এক প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, “বিকট আওয়াজে আমরা চমকে উঠি! দেখি এমার্জেন্সি ওয়ার্ডের ক্যান্টিনের সামনে কার্নিশ থেকে কিছু একটা আছড়ে পড়ল রেলিংয়ের ওপর। আমরা ছুটে গিয়ে দেখি রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছেন তরুণী।”

হাসপাতাল সূত্রে খবর, পেডিয়াট্রিক বিভাগের পিজিটি ওই চিকিৎসকের নাম পৌলোমী সাহা। বয়স ২৫। তাঁর এদিন ডিউটি ছিল ফিভার ক্লিনিকে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, করোনা সন্দেহে বা উপসর্গ নিয়ে যে রোগীরা আসবেন তাঁদের প্রাথমিক ভাবে চিকিৎসা করার কথা ওই ফিভার ক্লিনিকেই। সেই দায়িত্বেই ছিলেন তরুণী। এই বিষয়টিই কি কোনও ভাবে মানসিক চাপ তৈরি করল তাঁর উপর? নাকি অন্য কোনও কারণে এই মৃত্যু। এখনও কেউই নিশ্চিত নন এ ব্যাপারে।

তবে হাসপাতাল সূত্রের খবর, বেশ কিছু দিন ধরেই মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন পৌলোমী। শিশু বিভাগের সিক নিওনেটাল কেয়ার ইউনিটে তিনি ডিউটি করতেন। তাঁর অবসাদ এতই বেড়েছিল, যে তা নিয়ে তাঁর পরিবারের সঙ্গেও যোগাযোগ করা হয়েছিল।

সমস্ত দিক খতিয়ে দেখে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। মৃতদেহ ময়না-তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.